November 13, 2018

ভারতে ভূয়া ফেসবুক ব্যবহারকারীদের সাবধান করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রিজিজুঃ “ফেসবুকে বর্ধিত নিরাপত্তা বৈশিষ্ট আরোপ হচ্ছেঃ জুকারবার্গ”

ফেসবুক ব্যবহারকারীরা সাবধান! মনে যা ইচ্ছা তা পোষ্ট করা থেকে বিরত থাকুন; আর সাবধান হোন উস্কানিমূলক পোষ্ট তথা ডাহা মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত পোষ্ট দেওয়া থেকে।  ভারত সরকার এখন থেকে দেশের ভেতরে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ওপর কড়া দৃষ্টি রাখছে, জানালেন স্বরাষ্ট্র দপ্তরের মন্ত্রী মিঃ কিরেন রিজিজু। আজ অসমের রাঙ্গাপাড়ায় এক ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ তথ্য জানান স্বরাষ্ট্র দপ্তরের মন্ত্রী।  তিনি আরোও জানান, ভূয়া একাউন্ট ধারীদের বিরুদ্ধে খড়্গহস্ত হচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। উপযুক্ত তদন্তের মাধ্যমে ওদেরকে বিচারের কাঠগড়ায় আনারও বিহিত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে, জানালেন রিজিজু।

এদিকে, ভূয়া ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে গৃহীত কেন্দ্রীয় সরকারের এ উদ্যমকে সাধুবাদ জানিয়েছে অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, রাজনৈতিক ও বুদ্ধিজীবী মহল।  তাঁদের অভিমত, আজকের দিনে ফেসবুক যেন অভিশপ্ত সামাজিক মিডিয়ায় রূপান্তরিত হয়ে গেছে। শত্তর শতাংশের অধিক ফেসবুক ব্যবহারকারী এই সামাজিক মিডিয়াকে দুর্নীতির আড্ডাখানায় পরিনত করেছে; যা ইচ্ছা তা পোষ্ট দিয়ে সামাজিক দায়বদ্ধতাকে আজ তারা প্রশ্ন চিহ্নের মুখে ঠেলে দিয়েছে।  বিশ্রী ও কুরুচিপূর্ন ভিডিও এবং ফটোগ্রাফ পোষ্ট দিয়ে ওরা ফেসবুককে কলোষিত করে ফেলেছে। এখন কোন সচেতন পিতামাতার কাছে তাঁদের সন্তানদের মুখে ফেসবুক শব্দ উচ্চারিত হওয়া যেন দারুন লজ্জাকর বিষয়। অর্থাৎ স্কুল পড়ুয়াদের কাছে ফেসবুক যেন “লাভ ইউনিভারসিটি।“

এছাড়া, কিছু স্বার্থান্বেষী মহল ফেসবুকে বেশ কিছু আপত্তিকর ভিডিও আপলোড দিয়ে হিংসার বিষবাষ্প ছড়িয়ে দিচ্ছে। বলা বাহুল্য, এদেশের প্রায় ৯৮ শতাংশ লোকের কাছে আজকাল মোবাইলে ফেসবুক উপলদ্ধ। অথচ তারা কিন্তু সত্যাসত্য যাচাই করতে না পেরে স্বার্থান্বেষী রাজনৈতিক মহলের দেওয়া পোষ্টগুলো অকাতরে বিশ্বাস করতেই হয়। ফলে দেশের রাজনীতিতে নিদারুন বিরোপ প্রতিক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়। ওদেরকে লাগাম টানতে মোদি সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রে একাদশে বৃহস্পতি হয়ে দাঁড়াবে বৈকি!

প্রসংগত উল্লেখ্য, দুর্নীতিবাজ ও ফেক (Fake) ফেসবুক ব্যবহারকারীদের প্রকৃত স্বরূপ উদ্ঘাটন করতে যে একটি মাত্র পন্থাই অবলম্বন করা যথেষ্ট তা হচ্ছে, প্রতিটি ফেসবুক একাউন্টের বিপরীতে ব্যবহারকারীর “আধার কার্ড” সংযোজন করার নির্দেশ জারি করা হোক; তবেই তো কান ধরে টান দিলে মাথা অবশ্যই চলে আসবে।  আর নিমেষে ভূয়া পোষ্টগুলো ফেসবুক থেকে বিলীন হয়ে যাবে।  মোবাইলের সীম কার্ড থেকে তা কিন্তু বিচার করা সর্ব ক্ষেত্রে সম্ভবপর নহে, কেননা কিছু সার্ভিস প্রভাইডার আজকাল বাজারে রেকর্ড বিহীন ভূয়া সীমকার্ড বিক্রি করছে। এব্যাপারে ফেসবুক প্রধান মার্ক জুকারবার্গকে অনুরোধ জানানো যাইতে পারে যেন ভারতীয় ফেসবুক ব্যবহারকারীর ক্ষেত্রে আধার কার্ড বাধ্যতা মূলক করা হয়।

অপর দিকে, ফেসবুক প্রধান মার্ক জুকারবার্গ আজ জানিয়েছেন যে, “ফেসবুকে বর্ধিত নিরাপত্তা বৈশিষ্ট আরোপ করা হচ্ছে, যাতে ভূয়া একাউন্টগুলো ঠেকানো যায়।  নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকার সংগে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “the artificial intelligence (AI) tools deployed by Facebook to detect fake accounts, trying to manipulate news and influence the elections”.  উল্লেখ্য, এ ধরনের একটি টোল প্রথমবারের মত ২০১৭ সনে ফরাসী নির্বাচনে উপলব্ধ করা হয়েছিল।

Modi and joker burg

Related posts