November 13, 2018

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও রামুর ঘটনা একই সুত্রে গাঁথাঃ খাদ্যমন্ত্রী

গত বুধবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে মাদরাসাছাত্ররা যে তাণ্ডব চালিয়েছে, তা প্রতিরোধে পুলিশের ভূমিকা যথেষ্ট ছিল না বলেই মনে করছেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম। মন্ত্রীর ভাষ্য অনুযায়ী, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সেদিন যদি অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতো তাহলে ঘটনা এতদূর গড়াতো না। একইসঙ্গে মন্ত্রী এমন মন্তব্যও করেছেন, এটি কোনো বিচ্ছিন ঘটনা নয়। রামুর ঘটনা যারা ঘটিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনাও তারাই ঘটিয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের প্রতিবাদে ‘ঢাকাস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী’ আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। ওই ঘটনায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভূমিকার নিন্দাও জানান তিনি।

তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আলাউদ্দিন স্মৃতি পাঠাগারসহ বিভিন্ন স্থানে হামলার ঘটনায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী নির্লিপ্তভাবে কাজ করেছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী সেদিন যদি অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতো তাহলে এই ঘটনা এতদূর গড়াত না। আমি নিন্দা জানাই আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকার।

মানববন্ধনে কামরুল বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন জায়গায় সারাদেশে যেভাবে হামলা করা হয়েছে এবং যেভাবে একাত্তরের ঘাতকদের বিচার শুরু হওয়ার পর সাংস্কৃতিক ও ঐতিহাসিক স্থানসহ সারা বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক মৌলবাদী গোষ্ঠী তাণ্ডব চালিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনা এই ঘটনাগুলোর সঙ্গে একই সুত্রে গাঁথা। এটি কোনো বিচ্ছিন ঘটনা নয়। রামুর ঘটনাসহ অতীতে যতগুলো ঘটনা ঘটেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনা তারাই ঘটিয়েছে।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘এ হামলায় যে পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে, তার পরিমাপ অর্থ দিয়ে মাপা যাবে না। এগুলো নষ্ট করার মধ্য দিয়ে তারা আমাদের ঐতিহ্যের উপর আঘাত হেনেছে।’

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি উঠেছে। আমি একে সমর্থন দিয়ে বলতে চাই, বিচার বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের চিহ্নিত করতে হবে, তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। কোনো অবস্থাতেই তাদের বিচারের বাইরে রাখার সুযোগ নেই।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাংসদ রবিউল আলম মোক্তাদির চৌধুরীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন, জগন্নাথ বিশ্ব বিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান, কবি ও সাংবাদিক আবু হোসেন শাহরিয়ার প্রমুখ।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদি/ডেরি

Related posts