September 21, 2018

ব্যাপক সাড়া ফেলেছে বার্সার বাংলায় স্ট্যাটাস

009a0_photo_long

বাংলাদেশি সমর্থকদের উন্মাদনাকে সমর্থন জানাতে গতকাল বুধবার বার্সেলোনা তাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে বাংলাদেশের পতাকা ও বাংলা ভাষায় স্ট্যাটাস দিয়েছে। স্বাধীনতার মাসে বাংলাদেশি দর্শক-সমর্থকদের জন্য এ যেন এক দারুণ খুশির উপলক্ষ। ফেসবুকে লিওনেল মেসির একটি ছবির ওপরে বাংলায় ক্লাবটি লিখেছে, ‘আজ কেমন বোধ করছ?’ প্যারিস সেন্ট জার্মেইনয়ের বিপক্ষে জয়ের পর কাতালান সমর্থকদের সামনে গিয়ে মেসির আবেগ প্রকাশের ছবিটিই বার্সার ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের পেজে দিয়েছে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্যারিস থেকে ৪-০ গোলে হেরে আসার পর ন্যু ক্যাম্পে পিএসজিকে ৬-১ গোলে উড়িয়ে দেয় বার্সেলোনা। কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিতের পর গ্যালারিতে ভক্তদের কাছে ছুটে গিয়েছিলেন মেসি।

সেই ম্যাচের আগে ঘুম হারাম হয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশি ফুটবলভক্তদের। কোনো একটি ফুটবল টুর্নামেন্ট হবে আর সেখানে বার্সেলোনা থাকবে না, এটা মানতেই পারছিলেন না তারা। তবে নেইমার ও মেসি-জাদুতে ঠিকই শেষ আট নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা। এর ফলে স্বস্তি পায় ফুটবলবিশ্বের কোটি কোটি সমর্থক। জয়ের পর বাংলাদেশি সমর্থকদের মনে অবস্থা জানতেই বুঝি বার্সা লিখেছে, ‘আজ কেমন বোধ করছ?’

বাংলা ভাষায় স্ট্যাটাস দেওয়ার জন্য বাংলা ভাষাভাষী ভক্ত-সমর্থকরা বার্সা কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। রাকিব নামের একজন লিখেছেন, ‘ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না, যে ক্লাবের জন্য এত রাত জাগি, যে ক্লাবের জন্য হাসি-কাঁদি, সেই ক্লাব আজ বাংলায় পোস্ট করল। কলিজার টুকরার টিমের কাছ থেকে এমন কিছু পাওয়া ভাষায় প্রকাশ করার মতো না।’

মামুন শেখ নামের একজন লিখেছেন, ‘হতভম্ব, বাকরুদ্ধ এবং আজকে মনে হচ্ছে আমরা যতটুকু বার্সাকে সাপোর্টার হিসেবে ভালোবাসি এবং সম্মান করি, ঠিক বার্সাও ক্লাব হিসেবে বাংলাদেশি সাপোর্টারদের সম্মান করে এবং বাংলা ভাষাকে শ্রদ্ধা করে।’

গত ১৬ ঘণ্টায় প্রায় ১৯ হাজারবার শেয়ার হয়েছে পোস্টটি। লাইক পড়েছে ৯০ হাজারের বেশি। কমেন্ট পড়েছে প্রায় ২০ হাজারের মতো। বার্সেলোনার ফেসবুক পেজের কোনো পোস্ট এত বেশিবার শেয়ার হয়নি, এমনকি এত বেশি মন্তব্যও আসেনি।

বলা বাহুল্য, বাংলাদেশের ফুটবলভক্তদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি উন্মাদনা লাতিন আমেরিকার এ দুটি দেশকে কেন্দ্র করে। ম্যারাডোনার পর রোনালদো-রিকুয়েলমে-মেসি-রোনালদিনহোরা ক্লাব ফুটবলে বার্সেলোনার জার্সি গায়ে জড়িয়েছেন। এ কারণে ক্লাব ফুটবলে সম্পৃক্ত হয়েছেন বাঙালি ফুটবলপ্রেমীরাও।

Related posts