September 18, 2018

বোতলের দুধ শিশুর বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্যের জন্য অনিরপদ!

যশোরের শার্শা উপজেলার শান্তা গ্রামের এক বছরের শিশু পারু অপুষ্টিতে ভুগছে। তার মা রাহেলা জানান, পারুর জন্মের দুই মাস পর থেকে তিনি তাকে বুকের দুধ দিচ্ছেন না। তার বদলে খাওয়াচ্ছেন টিনের কৌটার গুঁড়ো দুধ।

বুকের দুধ খাওয়ানো সম্পর্কে রাহেলা জানান, বুকের দুধের উপকারিতা সম্পর্কে তার কোন ধারণা নেই। তিনি একটি ভুল ধারণা করে আসছেন যে, বুকের দুধের চেয়ে অন্যান্য দুধ (কৌটার) শিশুর বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্যের জন্যও বেশি প্রয়োজন।

পারুর মত অনেক শিশুই এ অঞ্চলে অপুষ্টি ও বিভিন্ন রোগে ভুগছে কেবল বুকের দুধ না খাওয়ানো ও বুকের দুধের উপকারিতা সম্পর্কে জ্ঞান না থাকার কারণে।
স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা টিনের গুঁড়ো দুধসহ সকল প্রকার কৃত্রিম দুধ বাজারজাত করার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা বলেছেন। গুঁড়ো দুধ নিষিদ্ধ হলে শিশুদের অপুষ্টিসহ বিভিন্ন রোগ থেকে তাদের রক্ষা করা যাবে বলে অভিমত বিশেষজ্ঞদের।

তারা জানান, ছয় মাস বয়স পর্যন্ত যদি কৃত্রিম খাবারের পরিবর্তে শিশুদের বুকের দুধ খাওয়ানো যায় তাহলে তারা শারীরিক ও মানসিকভাবে শক্ত হয় এবং তাদের শারীরিক গঠনও মজবুত হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. খুরশিদ জাহান বলেন, বুকের দুধ শিশুদের অনেক রোগ থেকে মুক্ত রাখে। বুকের দুধ না খাওয়ালে শিশুরা পোলিও, টিটেনাস, ডিপথেরিয়া, হাম, হিমোফেলিয়াস, ইনফ্লুয়েঞ্জা প্রভৃতি রোগে আক্রান্ত হয় এবং অন্যান্য রোগেও সংক্রমণ হতে পারে নবজাতক শিশুর। মানব দুধে শিশু সংক্রামক রোগের প্রতিষেধক উপাদান রয়েছে, যা রোগ প্রতিরোধক শক্তি হিসেবে কাজ করে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকার ‘বুকের দুধের বিকল্প শিশু খাদ্য, বাণিজ্যিকভাবে শিশু খাদ্য উৎপাদন ও খাদ্যে ব্যবহারের জন্য উপাদান (বাজার নিয়ন্ত্রণ) বিল-২০১৩’ পাস করেছে। এদিকে বাজার কৃত্রিম দুধে সয়লাব হয়ে আছে। অনেকেই মায়ের বুকের দুধের উপকারিতা সম্পর্কে অজ্ঞ থাকায় তাদের ছেলেমেয়েদের কৃত্রিম দুধ খাওয়াচ্ছে।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের অধ্যাপক ডা. মনির হোসেন বুকের দুধের উপকারিতা সম্পর্কে ব্যাপক প্রচারের জন্য গণমাধ্যমের বিশেষ ভূমিকা রাখা প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন। এছাড়া শিশু খাদ্যের অনিয়মের ব্যাপারে কঠিন আইন প্রয়োগ করা দরকার বলেও তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

ডা. মনির হোসেন বলেন, ছেলেমেয়েদের বোতলে দুধ খাওয়ালে সংক্রমণ হতে পারে। কিন্তু মায়ের দুধে কোনো ঝুঁকি নেই। শিশুবিষয়ক বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসক মনে করেন, সরকারের উচিত এখনই শিশুদের আলাদা বা অতিরিক্ত পুষ্টির নামে বাজারজাত করা কৃত্রিম দুধ বিক্রি বন্ধ করার জন্য আইন প্রণয়ন করা।

বুকের দুধ খাওয়ানোর অভ্যাস গড়ে তুলতে সচেতনতা তৈরির জন্য যৌথভাবে কাজ করছে বাংলাদেশ ব্রেস্টফিডিং ফাউন্ডেশন (বিবিএফ) ও ব্র্যাক। স্বাস্থ্যবান হিসেবে বেড়ে উঠার জন্য তারা মায়েদের বুকের দুধ খাওয়ানোর পরামর্শ দিচ্ছে। সেই সঙ্গে তারা শিশুদের কৃত্রিম দুধ না খাওয়ানোর জন্য মায়েদের নিরুৎসাহিত করার কাজ করছে।

Related posts