November 17, 2018

বৈরুত দূতাবাস কতৃক ভিসা সত্যায়িত আবারো শুরু

Untitled-1

লেবানন থেকে বাবু সাহাঃ প্রায় ৫৪ দিন বন্ধ থাকার পর খুব শীঘ্রই বৈরুত দূতাবাস ভিসা সত্যায়িত আবারো শুরু করবে বলে জানিয়েছে।১৫ অক্টোবর ২০১৮ সোমবার দূতাবাসের হেড অব কনস্যুলেট ও কাউন্সেলর সায়েম আহমেদ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে, ২৮ আগষ্ট ২০১৮ ইং এর আগে সংশ্লিষ্ট লেবাননের কর্তৃপক্ষ কর্তৃক জারিকৃত  চুক্তি বা ভিসা কিছু শর্ত অনুযায়ী লেবাননের বৈরুত দূতাবাস যাচাই বাছাই করে অনুমতি প্রদানের পর  বাংলাদেশ  সরকার লেবাননে শ্রমিক পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।শর্তগুলো হচ্ছে, সংশ্লিষ্ট কোম্পানীগুলো দূতাবাসে ভিসার সাথে কোম্পানির শ্রমিকদের মোট চাহিদা, কর্মীদের বেতন, নিরাপত্তা,বর্তমানে কতজন শ্রমিক কাজ করছে এবং অন্যান্য আইনি সুবিধা সহ যাবতীয় তথ্যাদি সংযুক্ত করে দিতে হবে।বৈরুত দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ কোম্পানী পরিদর্শন করে ভিসার সাথে জমা দেওয়া যাবতীয় তথ্যাদি যাচাই বাছাই এর পর যদি প্রয়োজন মনে করে, সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আনার অনুমতি প্রদান করবে।২৮শে আগষ্ট ২০১৮ইং এর আগে লেবাননের কর্তৃপক্ষ কর্তৃক জারিকৃত ভিসাগুলো এ নিয়মানুযায়ী সত্যায়িত করা হবে।২৮শে আগষ্ট ২০১৮ইং এর আগের ভিসাগুলোর কাজ শেষ হওয়ার পর পরবর্তী ভিসাগুলোর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নিয়মানুবলী পরে দূতাবাস থেকে অবহিত করা হবে।

গত ২৩ আগস্ট লেবাননের রাজধানী বৈরুতে বাংলাদেশ দূতাবাসের হেড অব কনস্যুলেট ও কাউন্সেলর সায়েম আহমেদ স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে  বলা হয়েছিল পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত দূতাবাস কর্মী নিয়োগের চুক্তিপত্র সত্যায়ন করার প্রক্রিয়া বন্ধ রাখবে।এই সিদ্ধান্তে জনশক্তি রপ্তানিকারকসহ সংশ্লিষ্টদের উদ্বেগের প্রেক্ষাপটে ২৮ আগস্ট  প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব নমিতা হালদার ২৮ আগস্ট লেবাননে শ্রমিক আসার ক্ষেত্রে একটি নতুন নীতিমালা তৈরী করে  লেবাননে কর্মী পাঠানোর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানান।নতুন নীতিমালায় বলা হয়, এখন থেকে যেসব রিক্রুটিং এজেন্সি বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়ে আসবে লেবাননে, তারা প্রথমে দূতাবাসে আবেদন করবে। দূতাবাস সরজমিনে যাচাই-বাছাই করে যদি মনে করে, এসব কোম্পানির শ্রমিক নিয়োগের সামর্থ্য আছে, তাহলেই শুধু বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আনার অনুমতি দেওয়া হবে। অনুমতি পাওয়ার পর তারা লেবাননের শ্রম মন্ত্রণালয়ে আবেদনের মাধ্যমে ভিসা সংগ্রহ করে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আনতে পারবে।বৈরুত দূতাবাসের এক অনুষ্ঠানে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করার পরেও কেন ভিসা সত্যায়িত করা হচ্ছে না এই বিষয়ে জানতে চাইলে রাষ্ট্রদূত বলেন, যেহেতু বৈরুত দূতাবাসকে লিখিত ভাবে অবহিত করে নাই, সেহেতু আমরা ভিসা সত্যায়িত করতে পারছি না।

এদিকে নতুন নীতিমালা অনুযায়ী ভিসা সত্যায়িত করার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে প্রবাসী বাংলাদেশিরা।তারা মনে করে,নতুন নীতিমালা অনুযায়ী যদি কর্মী বাংলাদেশ থেকে লেবাননে আসে, তাহলে তারা অনেকটাই উপকৃত হবে।রক্ষা পাবে লেবাননের সম্ভবনাময় শ্রমবাজার।

Related posts