April 25, 2019

বৈরুতে বর্ণিল আয়োজনে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

বামে-রাষ্ট্রদূত বক্তব্য দিচ্ছেন।ডানে- প্রধান অতিথিদেরকে সাথে নিয়ে কেক কাটছেন।
বামে-রাষ্ট্রদূত বক্তব্য দিচ্ছেন।ডানে- প্রধান অতিথিদেরকে সাথে নিয়ে কেক কাটছেন।

বাবু সাহা,লেবাননঃ লেবানন এর রাজধানী বৈরুতে বাংলাদেশের জাতীয় দিবস ৪৭তম মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস।২৮ মার্চ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হোটেল ফুনিসিয়ার গ্র্যান্ড বলরুমে অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন হয়েছে।মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে লেবাননে কর্মরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক এবং বিশিষ্ট লেবানিজ নাগরিকদের সম্মানে সোমবার রাতে একটি নৈশভোজের আয়োজন করেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার।

রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকারের আমন্ত্রনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, লেবাননের মহামান্য প্রেসিডেন্ট এর প্রতিনিধি তারেক আল ক্ষাতিব, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি পরিবেশ মন্ত্রী জামাল জাররাহ ও স্পীকার এর প্রতিনিধি টেলিকম মন্ত্রী ইয়াসিন জাবের।সন্ধ্যা ৭.৩০ ঘটিকায় তিন জন প্রধান অতিথি অনুষ্ঠানস্থলে আসিলে সেখানে তাঁদেরকে স্বাগত জানান আব্দুল মোতালেব সরকার ও তাঁর সহধর্মিনী লাদিয়া ফেরদৌস সরকার।সে সময় সেখানে বাংলাদেশ দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন দূতাবাসের প্রথম সচিব ও দূতালয় প্রধান সায়েম আহমেদ।

রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার ও লাদিয়া ফেরদৌস সরকার আমন্ত্রিত অতিথিদেরকে অভ্যর্থনা জানাচ্ছেন।
রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার ও লাদিয়া ফেরদৌস সরকার আমন্ত্রিত অতিথিদেরকে অভ্যর্থনা জানাচ্ছেন।

প্রধান অতিথিগণ সহ অন্যান্য আমন্ত্রিত অতিথিরা অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছার পর রাষ্ট্রদূত সবার সাথে কুশল বিনিময় করেন।পরে তিনি সবার উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তৃতার মাধ্যমে বাংলাদেশের উদীয়মান অর্থনীতি ও সরকারের গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরেন।পরে তিন জন প্রধান অতিথিকে সাথে নিয়ে ৪৭তম মহান স্বাধীনতা দিবস এর কেক কাটেন রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার।

অনুষ্ঠানে লেবাননের প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সহ অন্যান্য মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ, জাতিসংঘ ও ইউনিফিলে কর্মরত বাংলাদেশীরা ও প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে লেবানন ও বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত বাজানো হয় এবং বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও স্বাধীনতা দিবসের প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

Related posts