September 24, 2018

‘বেশ্যা বললেও আমি অপমান বোধ করি না’

কঙ্গনা-হৃতিকের মধ্যে যে যুদ্ধ চলছে, তাতে অশোভন ভাষার ব্যবহারও কম হয়নি। আর সেসব হয়েছে কখনো ঘর ভর্তি মিডিয়ার সামনে, কখনো আবার টুইটে। এসব অশ্লীল পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে কেউ কাউকে ছেড়ে দিয়ে কথা বলেননি। মামলা যেমন হয়েছে তেমনি কঙ্গনাকে থানায় তলব করার ঘটনাও ঘটেছে। যদিও কঙ্গনা তা আমলে নেননি, অগত্যা পুলিশই কঙ্গনার বাড়ি গিয়ে তিন ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে গেছে।

সম্প্রতি এনডিটিভকে দেয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে হৃতিকের সঙ্গে তার সম্পর্ক নিয়ে চলমান বিরোধকে ‘অত্যন্ত ভীতিকর’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনবার জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রী।

কঙ্গনাকে ‘বেশ্যা’ বলে ডাকা হচ্ছে জানালে তিনি এনডিটিভিকে বলেন, “এ আর নতুন কী। কোনো নারী যদি অতিমাত্রায় সফল হন তাকে বলা হয় সাইকোপ্যাথ বা মানসিক রোগী। আর কোনো নারী যখন যৌনতার দিক থেকে সক্রিয়, তখন তাকে বেশ্যা বলা হয়। তারা যখন আমাকে মানসিক রোগী, ডাইনি, বেশ্যা বলে, তাতে আমি অপমান বোধ করি না।”

হৃতিকের সঙ্গে অপ্রীতিকর রেষারেষির ব্যাপারে কঙ্গনা বলেন, “সাম্প্রতিক ঘটনাগুলো আমার জন্য খুবই ভীতিকর। আমার সফলতাই সমালোচনার বিরুদ্ধে বড় প্রতিশোধ। আমি নিজের সন্তুষ্টিতে বিশ্বাস করি, মানুষের সন্তুষ্টিতে নয়।”

হৃতিকের সঙ্গে আইনি বিষয়ে কঙ্গনা অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাইলে কঙ্গনা বলেন, “আদালতে বিচারাধীন বিষয়ে কোনো কিছু মন্তব্য করতে চাই না। যা আমি করিনি তার জন্য দুঃখ প্রকাশ করতে পারব না। আমাকে বিব্রত করার জন্য প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে যাওয়া হচ্ছে।”

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/৩ মে ২০১৬

Related posts