December 13, 2017

বিশ্বনাথে ৪৬ হাজার ৪শত ৯৭মেট্রিকটন ধান কৃষকদের ঘরে উঠবে।

IMG_20171204_131004_058মোঃ আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: প্রাকৃতিক দুর্যোগের শঙ্কা কাটিয়ে অবশেষে আমন ধানে কাঁচি লাগাতে পেরে বিশ্বনাথের কৃষকের মনে এখন আনন্দের হাওয়া বইছে। মাঠে কৃষকের সোনালি স্বপ্ন বাতাসে দুলছে। ধানে ধানে ভরে উঠছে মাঠ। সেই সাথে রঙিন হয়ে উঠছে প্রান্তিক কৃষকের স্বপ্ন। মাঠজুড়ে এখন সোনালি স্বপ্নের ছড়াছড়ি। ধানের উপস্থিতিতে কৃষক পরিবারে লেগেছে আনন্দের ঢেউ। আর সেই আনন্দে সাইল ধান কাটা শুরু করেছে বিশ্বনাথের কৃষকরা। ধান কাটা শেষ হলেই নতুন চাল দিয়ে গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি ঘরে ঘরে তৈরি হবে দেশীয় নানারকম পিঠা। সেই সময়কে ছুঁতে কৃষকরা ধান কাটা ও মারাই করতে এখন হাড়ভাঙা পরিশ্রম করছেন।

উপজেলার রামপাশা  ইউনিয়নের পুরান গাঁও গ্রামের কৃষক আব্দুল কুদ্দুস ও বিশঘর গ্রামের কৃষক নুরুল ইসলাম জানান, ধানের আবাদ ভালো হয়েছে। এখন চলছে ধান কাটার মহাউৎসব। নতুন ধান ঘরে নিয়ে গোলাভর্তি করলে তবেই স্বপ্ন পূরণ হবে ।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বছর ১৩হাজার ৪শত ১২হেক্টর জমিতে আমন জাতের ধানের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও ফলন হয়েছে ১৩হাজার ২শত৮৫ হেক্টর জমিতে। এপর্যন্ত কর্তন হয়েছে ৯শত ৩০হেক্টর। ধান কাটা চলমান রয়েছে। ধান কাটা শেষ হলে এবছর বিশ্বনাথে ৪৬হাজার ৪শত ৯৭মেট্রিকটন ধান কৃষকদের ঘরে উঠবে।

এ বিষয়ে বিশ্বনাথ উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলীনুর রহমান জানান, বন্যা পরবর্তী বিশ্বনাথ উপজেলায় কৃষকেরা আগাম জাতের ধান আবাদ করে ঘাটতি পুষিয়ে নিয়েছে। এছাড়াও সরকারি ভাবে বিনামূল্যে বীজ, সার বিতরণ করা হয়েছে।

Related posts