April 25, 2019

বিশ্বনাথে সরকারি জায়গা দখল করে ১৯টি ঘর নির্মাণ

IMG_20190123_214514বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে জোর করে সরকারি জায়গা দখল করে ১৯টি দোকান ঘর নির্মাণ করছেন প্রভাবশালীরা। আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সুরমা নদীর জেগে উঠা চরে দোকান নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে তাদের ওপর। এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ফাতেমা-তুজ-জোহুরা বরাবরে আজ বুধবার লিখিত অভিযোগ করেছেন বাঁচাও বাসিয়া নদী ঐক্য পরিষদের আহবায়ক মো. ফজল খান।

অভিযোগে প্রকাশ: এনায়েতপুর/২৬ মৌজার দাগ নং ১২৫৫, খতিয়ান নং ১ মুক্তিরবাজার নামক স্থানে সুরমা নদী জেগে উঠা চর দখল করে ১৯টি দোকান কোটা নির্মাণ করেছেন দুদু মিয়া, মোশারফ আলী, সমসেদ আলী, ফয়জুল ইসলাম, আলখাছ আলী, ইছাক আলী, আশিক মিয়া, বাবুল মিয়া, সুহেল মিয়া, আলখাছ মিয়া (২), ফুল মিয়া, ফজলু মিয়া, আব্দুর রহিম, আশিক মিয়া(২), আব্দুল্লাহ, মনির মিয়া, সমজিত মিয়া, জমির আলীও তাদের লোকজন। গতকাল বুধবার এসব দখলবাজরা অবৈধভাবে নদী থেকে মাটি খনন করে তাদের অবৈধ নির্মানাধীন ভবনে মাটি ভরাট করছেন।

নদী রক্ষার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে বিশ্বনাথবাসীকে নিয়ে সামাজিক আন্দোলন করে আসছেন মো. ফজল খান তারপরও অবৈধ দখল প্রতিহত করা সম্ভব হচ্ছে না। দিনে দিনে দখলবাজরা বেপরোয়া হয়ে দাড়িয়েছে। এখন যদি প্রতিহত করা না যায় তাহলে ভবিষ্যতে সুরমা নদীকে হারাতে হবে। ফলে আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করে অবৈধ দখলবাজদের উচ্ছেদের জন্য মো. ফজল খান সরকার ও প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

খাজাঞ্চি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তালুকদার গিয়াস উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, সরকারি জায়গায় অবৈধভাবে কেউ দোকান ঘর নির্মাণ করে থাকলে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে তিনি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন।

লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফাতেমা-তোজ-জোহুরা সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে।

Related posts