November 19, 2018

বিশ্বনাথে শিক্ষা অফিসে ১৩টি পদের মধ্যে ৯টিই শুণ্য

index-12মো. আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: দীর্ঘদিন ধরে জনবল সংকটে ভোগছে সিলেটের বিশ্বনাথের শিক্ষা অফিস। ফলে গুরুত্বপূর্ণ অনেক কাজ করতে হিমশিম খাচ্ছেন শিক্ষা অফিসার। দীর্ঘদিন ধরে সহকারী শিক্ষা অফিসারের ৯টি পদ শুণ্য থাকায় উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো পরিদর্শন কিংবা খোঁজ-খবর রাখা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। সেই সুবাধে কিছু বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা অনিয়মিতভাবে বিদ্যালয়ে উপস্থিত হচ্ছেন এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই সব শিক্ষক-শিক্ষিকা নাম মাত্র বিদ্যালয়ে গিয়ে হাজিরা খাতায় সাক্ষর করে চলে আসেন। এক্ষেত্রে কিছু কিছু বিদ্যালয়ের ফলাফল বিপর্যয় হচ্ছে বছরের পর বছর। বিদ্যালয়ে নিয়মিতভাবে ছাত্র-ছাত্রীর উপস্থিতির কথা থাকলেও উপস্থিতি খুব কম লক্ষ করা যাচ্ছে। দিন দিন বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষার মান কমে আসছে। শিক্ষা অফিসের জনবল সংকটের কারণে এমনটাই হচ্ছে বলে সচেতন মহল মনে করছেন। তারপরও নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন শিক্ষা অফিসার মুহি উদ্দিন আহমদ।

শিক্ষা অফিস সূত্রে জানাগেছে, ৭ জন উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসারের মধ্যে ৫টি পদ শুন্য রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। মাত্র দু’জন সহকারী শিক্ষা অফিসার দিয়ে চলছে উপজেলা শিক্ষা অফিসের কার্যক্রম। এছাড়া বাকি শূণ্যপদ গুলো হল-উচ্চমান সহকারি পদটি শূণ্য, অফিস সহকারি কাম কম্পিউটার অপারেটর দুটি পদের মধ্যে একটি পদ শূণ্য, হিসাব সহকারি একটি পদ ওই পদটিও শূণ্য, এম এল এস এস একটি পদ রয়েছে সেটিও শূণ্য।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষানুরাগী বলেন, শিক্ষা অফিসের বিভিন্ন পদ শুন্য থাকায় নিয়মিতভাবে বিদ্যালয়গুলো পরিদর্শন করতে পারছেননা তারা। সেই সুযোগে কিছু সুবিধাভোগী শিক্ষকেরাও নিয়মিত কর্মস্থলে যাচ্ছেন না। মনগড়াভাবে চলছে তাদের শিক্ষকতা। নাম মাত্র কিছু শিক্ষক বিদ্যালয়ে যাচ্ছেন আর আসছেন।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার মুহি উদ্দিন আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, সাতজন উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসারের মধ্যে মাত্র ২ জন রয়েছেন। এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে শুন্য রয়েছে হিসাব সহকারী ও অফিস সহকারী পদটি। ফলে দিন রাত কাজ করেও হিমশিম খেতে হচ্ছে।

Related posts