January 24, 2018

বিশ্বনাথে শফিক চৌধুরী বলয়ের আ.লীগ নেতারা ফুরফুরে!

index-4-1মোঃ আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ থেকে :: বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের প্রায় আড়াই বছর পর অবশেষে পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করা হলো। সকল জল্পনা-কল্পনার অবশেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের ৭৬ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির অনুমোদন করে জেলা আওয়ামী লীগ। ১৩ জানুয়ারী শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটির অনুমোদন করা হয়েছে। সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী স্বাক্ষরিত ৭৬সদস্য বিশিষ্ট তিন বছর মেয়াদি কমিটির অনুমোদন দেন।

বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগ দুটিভাগে বিভক্ত রয়েছে। সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী বলয়,অপরটি যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান বলয়। উভয় গ্রুপই কমিটি আসার পূর্বেই পৃথক পৃথক বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। তবে নব-গঠিত পূর্নাঙ্গ কমিটিতে সভাপতি পদে শফিক চৌধুরীর বলয়ের নেতা পংকি খান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক পদে আনোয়ারুজ্জামান বলয়ের নেতা ফারুক আহমদ স্থান পেয়েছেন। ওই কমিটির বেশিরভাগ পদ-পদবি স্থান পেয়েছেন শফিকুর রহমান চৌধুরী বলয়ের আওয়ামী লীগ নেতারা।

বিশ্বনাথে সদ্য ঘোষিত উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্নাঙ্গ কমিটিতে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী বলয়ের অধিকাংশ নেতা দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ পান। ফলে উপজেলায় শফিক চৌধুরী বলয়ের নেতাকর্মীরা বর্তমানে ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন। এবার উপজেলা যুবলীগের পূর্নাঙ্গ কমিটিতে শফিক চৌধুরী অনুসারী নেতারা কমিটিতে স্থান পেতে তৎপর রয়েছেন।

দলীয় সূত্রে জানাযায়, ২০১৫ সালের ৮ জুন উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়। ওই সম্মেলনের কণ্ঠভোটে পংকি খানকে সভাপতি ও পুনরায় বাবুল আখতারকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়। তবে সম্প্রতি ওমরা হজ্ব পালনকালে সৌদিআরবে বাবুল আখতার মৃত্যুবরণ করেন। তারা দু’জনই ছিলেন শফিক চৌধুরী গ্রুপের নেতা। কিন্তু এই কণ্ঠভোটের প্রতিবাদ করেন আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী গ্রুপের নেতাকর্মীরা। তাদের দাবি, গোপন ভোটের মাধ্যমে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করতে হবে। আনোয়ারুজ্জামান গ্রুপের নেতাকর্মীদের দাবির মুখে দীর্ঘ প্রায় আড়াই বছরেও ওই তালিকার কমিটি প্রকাশ করা হয়নি। এ নিয়ে জেলা কমিটির সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। আর ওই দ্বন্ধের আড়াই বছর ধরে এভাবেই ঝুলে ছিল উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি। অবশেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি অনুমোদন লাভ করে। এতে শফিক চৌধুরী বলয়ের জয়-জয়কার

নব-গঠিত কমিটির শফিক চৌধুরী বলয়ের কয়েকজন নেতা জানান, দীর্ঘদিন পর উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি অনুমোদন হয়েছে। ফলে দলের নেতাকর্মীর মধ্যে চাঙ্গাভাব সৃষ্টি হয়েছে। দলের ত্যাগী নেতাদের দিয়ে পূর্নাঙ্গ কমিটি অনুমোদন করায় জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে অভিনন্দন জানান তারা। আগামী দিনে বিশ্বনাথে আওয়ামী লীগকে আরও শক্তিশালী করতে শফিকুর রহমান চৌধুরীর নেতৃত্বে তারা কাজ করে যাবেন বলে জানান।

Related posts