September 24, 2018

বিশ্বনাথে যে অনুষ্ঠানে এলেন না কোনো অতিথি!

554765মো. আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে সামাজিক সংগঠন বিশ্বনাথ ইসলামী ছাত্র সংস্থার উদ্যোগে রজত জয়ন্তী উৎসব ও ২৩তম বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আজ শনিবার দুপুরে উপজেলা সদরের কামিল মাদরাসা প্রাঙ্গনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। এতে অর্থ প্রতিমন্ত্রী, এমপিসহ ১৪জনকে অতিথি করা হয়। কিন্তু অনুষ্ঠানের শেষ পর্যন্ত একজন অতিথিও আসেননি। এনিয়ে আয়োজক কমিটির নেতৃবৃন্দের মধ্যে কানাঘোষা করতে দেখা যায়। বিশ্বনাথে এই প্রথম কোনো সামাজিক অনুষ্ঠানে একজন অতিথিও আসেননি।

জানাগেছে, বিশ্বনাথ ইসলামী ছাত্র সংস্থার আয়োজনে রজত জয়ন্তী উৎসব ও ২৩তম বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। গতকাল শনিবার ছিল অনুষ্ঠান। এতে জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদ, বিশিষ্টজনসহ ১৪জনকে অতিথি করা হয়। অতিথি কার্ডে দেখা যায়, অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম.এ মান্নান এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন সিলেট-২ আসনের সংসদ সদস্য ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া। অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আল কুরআন ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান ড.মো.রইছ উদ্দিন ও প্রধান আলোচক হিসেবে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক মাওলানা আহমদ হাসান চৌধুরী।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে ছিলেন, সিলেট-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা মো.আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরী, বাংলাদেশ জমিয়তুন মুদারিছিন’র যুগ্ম-মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা একেএম মনোওর আলী, বিশ্বনাথ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক সিরাজুল হক, উত্তর বিশ্বনাথ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ নেছার আহমদ, সৎপুর দারুল হাদিস কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আবু জাফর মো. নোমান, বিশ্বনাথ দারুল উলুম ইসলামীয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা নু’মান আহমদ, হলিয়ারপাড়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মঈনুল ইসলাম পারভেজ, প্রবাসী দাদু ভাই ছইল মিয়া ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মো.ছইল মিয়া। অনুষ্ঠান সফলের লক্ষে ইতিমধ্যে ব্যাপক প্রচার-প্রচারনা করা হয়। অনুষ্ঠানের অতিথিসহ এলাকার বিভিন্ন পেশার মানুষকে অনুষ্ঠানের আমন্ত্রনপত্র প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠান সফলের লক্ষে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করে আয়োজক কমিটি। অনুষ্ঠানটি সফল করার লক্ষে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছিল। গতকাল রোববার বেলা ২টায় আনুষ্ঠানিকভাবে অনুষ্ঠান শুরু হয়। কিন্তু অনুষ্ঠানের শেষ পর্যন্ত একজন অতিথিও উপস্থিত হননি।

অনুষ্টান উপলক্ষে ‘সৃষ্টি সুখের উল্লাসে’ একটি স্মারকও বের করা হয়। ওই স্মারকে দেখা গেছে অর্থ প্রতিমন্ত্রী, স্থানীয় এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান, সাবেক সংসদ সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক, যুক্তরাজ্য কমিইউনিটি নেতা’সহ এই ৬জনের বাণীও রয়েছে। পাশাপাশি অতিথিদের জন্য বেশ কয়েকটি ক্রেষ্টও উপহার স্বরুপ রাখা হয়। কিন্তু দুঃখের বিষয় এই অনুষ্টানে ১৪জন অতিথির মধ্যে একজন অতিথিই উপস্থিত হননি। পরে সংস্থার দায়িত্বশীলরা অনেকটা লজ্জাজনকভাবে ১শত ৫৪টি শিক্ষা প্রতিষ্টানের ১শত ৫৪জন শিক্ষার্থীদের হাতে বৃত্তি প্রদান করে অনুষ্টানের সমাপ্তি করেন।

অনুষ্ঠানে না আসার কারন জানতে চাইলে সিলেট-২ আসনের সংসদ সদস্য ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া বলেন, আমি অসুস্থ ছিলাম। চিকিৎসার জন্য ভারত ছিলাম। আজ শনিবার সকালে ঢাকা আসি। অসুস্থ থাকার কারনে অনুষ্ঠানে আসতে পারেননি বলে তিনি জানান।

বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরী বলেন, শারীরিক অবস্থা কিছুটা খারাপ ছিল তাই অনুষ্ঠানে আসতে পারিনি।

Related posts