November 14, 2018

বিশ্বনাথে বাথরুম থেকে শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার

images-2বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে বাথরুম থেকে শিক্ষার্থী আরমান মিয়া (১২) মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার দৌলতপুর (মোকামবাড়ি) প্রবাসী তারিফ মিয়ার বাড়িতে থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধার করা হয়। সে নবীগঞ্জ থানার সমতিপুর গ্রামের আখন মিয়ার ছেলে। দীর্ঘ তিন বছরের ধরে সে স্বপরিবারের বিশ্বনাথ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নে দৌলতপুর (মোকামবাড়ি) যুক্তরাজ্য প্রবাসী তারিফ মিয়ার বাড়িতে বসবাস করে আসছে। সে উপজেলার দৌলতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সদ্য সমাপ্ত পিএসি পরীক্ষা দিয়েছে। খবর পেয়ে সন্ধ্যায় ঘটনাস্থলে পুলিশ ছুটে যায়। পরিবারের দাবি শিক্ষার্থী আত্বহত্যা করেছে।
জানাগেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে শিক্ষার্থী আরমান আলী ঘরে থাকা বাথরুমে প্রবেশ করে। র্দীঘক্ষণ ধরে সে বাথরুম থেকে বের হচ্ছেনা দেখে পরিবারের লোকজন তাকে অনেক ডাকাডাকি করেন। পরে বাথরুমে ভেন্ডিলেটারের দিকে থাকিয়ে পরিবারের লোকজন দেখতে পান বাথরুমে থাকা টাওয়াল রাখার স্ট্যান্ডের সঙ্গে শিক্ষার্থী আরমান আলীর ঝুলন্ত দেহ। বাথ রুমের দরজা ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করেন পরিবারের লোকজন। এসময় তার মৃতদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে বিষয়টি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়।
এব্যাপারে দৌলতপুর ইউপি চেয়ারম্যান আমির আলী বলেন, বিষয়টি আমাকে অবহিত করা হয়। পরে এবিয়ষটি আমি থানা পুলিশকে অবহিত করি।
নিহত শিক্ষার্থীর পিতা আখন মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, আমার ছেলে আত্বহত্যা করেছে। তবে কি কারণে সে আত্বহত্যা করেছে তা জানানেই।
বিশ্বনাথ থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম এর সঙ্গে মোবাইল ফোনে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৭টায় যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এখন ঘটনাস্থলে অবস্থান করছি। পরে বিষয়টি জানাচ্ছি।

Related posts