September 22, 2018

বিশ্বনাথে গাছে গাছে ছেঁয়ে গেছে আমের মুকুল

amar-mukulমোঃ আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ (সিলেট) থেকে :: আয় ছেলেরা, আয় মেয়েরা, ফুল তুলিতে যাই, ফুলের মালা গলায় দিয়ে,মামার বাড়ে যাই। ঝড়ের দিনে মামার দেশে,আম কুড়াতে সুখ, পাকা জামের মধুর রসে, রঙিন করি মুখ। পল্লীকবি জসীম উদ্দিনের ‘মামার বাড়ি’ কবিতার পংক্তিগুলো বাস্তব রূপ পেতে বাকি রয়েছে আর কয়েকদিন।

বিশ্বনাথের প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় তবে সুখের ঘ্রাণ বইতে শুরু করেছে। গাছে গাছে ফুটছে আমের মুকুল। চারদিকে ছড়িয়ে পড়ছে এই মুকুলের পাগল করা ঘ্রাণ। বাতাসে মিশে সৃষ্টি করছে মৌ মৌ গন্ধ। যে গন্ধ মানুষের মন ও প্রাণকে বিমোহিত করে। পাশাপাশি মধুমাসের আগমনী বার্তা শোনাচ্ছে আমের মুকুল। সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার প্রতিটি এলাকায় ছেঁয়ে গেছে আমের মুকুল। বিভিন্ন এলাকা ঘুরে চোখে পড়ে চারদিকে আমের মুকুল আর আমের মুকুল। শীতের মৌসুম শেষে বসস্তের শুরুতে আম গাছের দিকে তাকালে বুঝা যায় আমের মৌসুম এসে গেছে। উপজেলার প্রতিটি বাড়িতে আমের মুকুল দেখা যাচ্ছে। এবার উপজেলায় অন্য বারের তুলনায় আমের মুকুল অনেক বেশি দেখা যাচ্ছে। বড় ধরণের প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হয়ে, যদি সঠিক সময় বৃষ্টি হয় তাহলে সব কয়টি গাছে আমের বৈল আসতে পারে। আমের ফলন ও হতে পারে ভালো। উপজেলায় তেমন কোন জায়গায় আম চাষ চোখে পড়েনি।

তবে যে সব গাছে আমের মুকুল এসেছে এগুলো সঠিক ভাবে পরির্চযা করলে অন্তত এলাকার মানুষের কিছুটা চাহিদা পুরণ করবে। উপজেলায় কৃষি খাতে মোটামুটি চাষাবাদ থাকলেও আম, কাঁঠাল এসবের ক্ষেত্রে তেমনটা নেই। রাস্তা ঘাটে পুকুর পাড়ে ঘরের চালে যে দিকে থাকায় চোখে পড়ে আমের মুকুল আর আমের মুকুল।

Related posts