November 13, 2018

বিশ্বনাথের মারজানের জন্য হৃদয়বানদের অভূতপূর্ব সাঁড়া

37234970_1933442856707024_6747675045453103104_n-1মো. আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথের হতদ্ররিদ্র কিশোর মারজানের (১৭) চোখের চিকিৎসার জন্য হৃদয়বানদের অভূতপূর্ব সাঁড়া পাওয়া গিয়েছে। এতে আমরা দারুণ অভিভূত ।মানুষের জন্য মানুষের এমন ভালবাসা আছে বলেই পৃথিবীটা এত সুন্দর ।আর তাই পৃথিবীতে প্রতিদিন কত শত শত মানুষ স্বপ্ন হারানোর পরও নতুন এক জীবনের সন্ধান পায় । মারজানের মা জাহেদা বেগম সমাজের বিত্তবানদের কাছে তার সন্তানের সুচিকিৎসার জন্য ৬০ হাজার টাকার আর্থিক সাহায্য চেয়েছিলেন । এবিষয়ে মানবিক আবেদন জানিয়ে গত ১৭ জুলাই বিশ্বনাথ ও সিলেটের বিভিন্ন অনলাইনে ‘বিশ্বনাথে মাত্র ৬০ হাজার টাকার অভাবে দুচোখ হারাতে বসেছে কিশোর মারজান’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম জুবায়েরের লেখা প্রতিবেদনটি পড়ে দেশ থেকে ও সূদূর প্রবাস থেকে অসংখ্য হৃদয়বান ব‌্যক্তিরা সংবাদের প্রতিবেদক রফিকুল ইসলাম জুবায়ের, বিশ্বনাথ নিউজ ২৪ ডটকম-এর সম্পাদক এমদাদুর রহমান মিলাদ ও বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবের বিভিন্ন সদস‌্যবৃন্দের সাথে যোগাযোগ করেছেন । সকলেই মারজানের (১৭) চোখের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহযোগীতা করতে চেয়েছেন। তাদের অনেকেই চিকিৎসার সম্পূর্ণ ব‌্যয় বহন করতে চেয়েছেন।

এমতাবস্থায় দেশের অন্যতম সেরা চক্ষু রোগ বিশেষজ্ঞ বিশ্বনাথের কৃতিসন্তান ডাঃ জহিরুল ইসলামের একান্ত আগ্রহে গত শুক্রবার (২০ জুলাই) তাঁর কাছে পাঠানো হয় মারজানকে । ডাঃ জহিরুল ইসলাম মহৎ হৃদয়ের পরিচয় দিয়ে মারজানকে বিনামূল্যে বিভিন্ন চেকআপ করে দেওয়ার সাথে সাথে তার পকেটের টাকা দিয়ে প্রয়োজনীয় ঔষধপত্রও ক্রয় করে দিয়েছেন এবং পরামর্শ দিয়েছেন আগামী ৩ আগস্ট মারজানকে পুনঃরায় দেখে পরবর্তী পরামর্শ দিবেন ।

এদিকে মারজানের মা জাহেদা বেগম শনিবার (২১জুলাই) জানিয়েছেন, ডাঃ জহিরুল ইসলামের দেওয়া ঔষধ ব্যবহারের ফলে তার ছেলের নষ্ট হয়ে যাওয়া বাম চোখে ব্যথা এখন অনেকটা কম হচ্ছে। এ অবস্থায় আগামী ৩ আগস্ট পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে। আমরা আশাবাদী মহান আল্লাহ তায়ালার অসীম দয়ায় এবং আপনাদের সহযোগিতায় মারজান নতুন এক জীবনের সন্ধান পাবে ।

Related posts