November 15, 2018

বিবিসিসিআই নির্বাচন: এনাম আলী ও মনির আহমদ নির্বাচিত (ভিডিও)

লন্ডন ডেস্কঃঃ ব্রিটেনে বাঙালি কমিউনিটির ব্যবসায়ীদের বৃহত্তম সংগঠন ব্রিটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (বিবিসিসিআই) সাধারণ সভা ও নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে গত ২০ এপ্রিল বুধবার।

পূর্ব লন্ডনের দ্য এট্রিয়াম বেঙ্কুয়েটিং হলে এই সাধারণ সভা ও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। মধ্যাহ্ন বিরতি শেষে বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে শুরু হয় ভোট গ্রহণ। এতে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করেন ব্যারিস্টার আনিস রহমান ওবিই, টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি মেয়র ওহিদ আহমদ ও ব্যারিষ্টার নাজির আহমদ। ভোট গণনা শেষে তাৎক্ষনিকভাকে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

ফলাফল ঘোষণার পর বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীদের পাশাপাশি চেম্বারের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট মাতাব চৌধুরী এবং বিদায়ী ডাইরেক্টর জেনারেল মুহিব চৌধুরীও বক্তব্য রাখেন।

একাধিক প্রার্থী থাকায় প্রেসিডেন্ট এবং ফাইন্যান্স ডাইরেক্টর পদে কেবল ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে মোট ভোটার ছিলেন ২৭ জন। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ২৬ জন। সর্বোচ্চ ১৬ ভোট পেয়ে বিবিসিসিআই এর নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ডের প্রতিষ্ঠাতা এনাম আলী এমবিই। তাঁর প্রতিদ্ধন্ধী বাংলা টাউন ক্যাশ অ্যান্ড কারির স্বত্ত্বধিকারী রফিক হায়দার পেয়েছেন ১০ ভোট।

ফাইন্যান্স ডাইরেক্টর পদে ১৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন জেএমজি কার্গোর স্বত্ত্বাধিকারী মনির আহমদ। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী এশিয়াটিক লিমিটেডের ডাইরেক্টর শফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ১১ ভোট।

ভিডিওঃঃ বিবিসিসিআই নির্বাচনে ভোটের আমেজ  ( নীচে আরো সংবাদ ও ভিডিও আছে )

এছাড়া প্রতিদ্বন্ধী না থাকায় ভোটাভুটি ছাড়াই নির্বাচিত হয়েছেন- ডাইরেক্টর জেনারেল পদে সাইদুর রহমান রেনু। ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে মুহিব উদ্দিন চৌধুরী ও এম এ কাইয়ুম। প্রেস এন্ড পাবলিক রিলেশন্স ডাইরেক্টর আবুল কালাম আজাদ। মেম্বারশীপ ডাইরেক্টর সরকুম মোহাম্মদ খালেদ আহমেদ। কমিউনিটি অ্যাফেয়ার্স ডাইরেক্টর ডা. সানাওয়ার চৌধুরী। ইন্টারন্যাশনাল রিলেশন্স ডাইরেক্টর আবুল নূরুজ্জামান।

চেম্বারের নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট এনাম আলী এমবিই তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমাদের বাঙালি সমাজের মধ্যে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়া এক ধরণের রীতিতে পরিনত হয়েছে। কিন্তু নিজের যোগ্যতা ও গ্রহণযোগ্যতা প্রমাণের জন্য গণতন্ত্র এবং নির্বাচনের বিকল্প নেই। আজকের এই প্রতিদ্বন্দ্বিপূর্ণ নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্রের বিজয় হয়েছে। প্রতিদ্বন্দী রফিক হায়দারকে ধন্যবাদ জানিয়ে এনাম আলী বলেন, রফিক হায়দার প্রার্থী না হলে আমি নিজের বিশ্বাসযোগ্যতাকে প্রমাণ করতে পারতাম না। সত্যিকার পরীক্ষার মধ্যদিয়ে আমি দ্বায়িত্বের জন্য নির্বাচিত হয়েছি। তিনি চেম্বারের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ও সকল ডাইরেক্টরসহ নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ জানান। সকলের সহায়তায় চেম্বারকে আরও গতিশীল ও এগিয়ে নেয়ার প্রত্যায় ব্যক্ত করেন এনাম আলী।

ভিডিওঃঃ বিবিসিসিআই নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে বিজয়ী এনাম আলীর বক্তব্য  ( নীচে আরো সংবাদ আছে )

প্রেসিডেন্ট পদের পরাজিত প্রার্থী রফিক হায়দার এবং ফাইন্যান্স ডাইরেক্টর পদের পরাজিত প্রার্থী শফিকুল ইসলাম বিজয়ীদের অভিনন্দন জানান।

দুপুর সাড়ে ১২টায় শুরু হয় বোর্ড মিটিং। বোর্ড মিটিংয়ে সভাপতিত্ব করেন চেম্বারের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট মাতাব চৌধরী। এই বোর্ড সভায় নতুন ৭ জন ডাইরেক্টর নেয়া হয়। এর ফলে চেম্বারের মোট ডাইরেক্টর সংখ্যা হল ৩৫ জন।

অনুমোদন পাওয়া ডাইরেক্টররা হলেন- ডা. সানাওয়ার চৌধরী, মইন উদ্দিন, সরকুম খালেদ আহমদ, শাকুর আলী, আবুল নুরুজ্জামান, কাউন্সিলার জাহাঙ্গীর হক, আবুল কালাম আজাদ, আহমদ হাসান, আতাউর রহমান কুটি, মোহাম্মদ আব্দুল মুকিত, হেলাল উদ্দিন খান, সুফি মিয়া, এমাদ আহমদ ও আব্দুল মুনিম।

আগামী ২৪ মে বিবিসিসিআই-এর বার্ষিক গালা ডিনার অনুষ্ঠিত হবে। ওই গালা ডিনার অনুষ্ঠানেই নির্বাচিত নতুন কমিটির হাতে দ্বায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হবে।

গালা ডিনার অনুষ্ঠানে বিবিসিসিআই-এর সকল মেম্বার ও ডাইরেক্টরদের উপস্থিত থাকার জন্য আহবান জানানো হয়েছে। খুব শীগ্রই মেম্বার ও ডাইরেক্টরদের গালা ডিনারের আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হবে। সদস্য ও ডাইরেক্টররা যাতে ২৪ মে দিনটি বিবিসিসিআই-এর গালা ডিনারের জন্য খালি রাখেন- সে অনুরোধ জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট মাতাব চৌধুরী।

Related posts