April 20, 2019

বিপিএলকে ‘না’ হাফিজের!

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য ছাড়পত্র পাওয়া পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ আমিরকে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) তৃতীয় আসরের জন্য দলে ভেড়ানোয় দেশটির সিনিয়র ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হাফিজ চিটাগাং ভাইকিংসের আকর্ষণীয় প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন। দেশকে যারা কলঙ্কিত করেছেন তাদের সঙ্গে একই দলের হয়ে খেলতে আপত্তি জানিয়েছেন এই পাকিস্তানি তারকা।

শুক্রবার দুবাইয়ে পাকিস্তানি উর্দু দৈনিক ‘জং’ কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মোহাম্মদ হাফিজ বলেন, ‘এটি কোনো ব্যক্তিগত সমস্যা বা ব্যক্তিগত শত্রুতার কারণে নয়। বরং এটি পাকিস্তান ক্রিকেটের ভাবমূর্তির বিষয়। আমি এমন কোনো খেলোয়াড়ের সঙ্গে খেলতে পারি না যে কী দেশকে কলঙ্কিত করেছে, দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে।’
পাকিস্তানি উর্দু দৈনিকটির দাবি, মোহাম্মদ হাফিজ চিটাগাং ভাইকিংসের পক্ষ থেকে বিপিএলের তৃতীয় আসরে খেলার জন্য আকর্ষণীয় প্রস্তাব পেয়েছেন। কিন্তু মোহাম্মদ আমির সেই দলে থাকায় হাফিজ সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন।

২০১০ সালে স্পট-ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে পড়ায় পাঁচ বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন মোহাম্মদ আমির, মোহাম্মদ আসিফ ও সালমান বাট। গত ১ সেপ্টেম্বর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হয় এই ত্রয়ীর। জাতীয় দলে ফেরার লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই ঘরোয়া ক্রিকেটে মাঠে নেমেছেন আমির।
এর আগে গত সেপ্টেম্বরে লাহোরের জাতীয় ক্রিকেট একাডেমিতে সাবেক বোলিং কোচ মোহাম্মদ আকরাম মোহাম্মদ হাফিজকে বল করার জন্য মোহাম্মদ আমিরকে আমন্ত্রণ জানান। তবে কলঙ্কিত ঘটনার জন্য হাফিজ আমিরকে মোকাবেলা করতে অস্বীকৃতি জানান।

স্পট-ফিক্সিংয়ের দায়ে নিষিদ্ধ হওয়া তিন পাকিস্তানি ক্রিকেটার আমির, আসিফ ও বাটকে ফের পাকিস্তানের হয়ে কোনো ধরনের আন্তর্জাতিক খেলতে না দেয়ার জন্য জাতীয় দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার সরব রয়েছেন। তাদের মধ্যে হাফিজ অন্যতম।

বিপিএলের তৃতীয় আসরের জন্য পাকিস্তানের ১৬ জন ক্রিকেটারকে চুক্তিবদ্ধ করেছে বাংলাদেশের ছয়টি ফ্রাঞ্চাইজি। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সংযুক্ত আরব আমিরাতে টি-২০ সিরিজ শেষ করে সরাসরি বাংলাদেশে আসবেন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা।

বিপিএলের তৃতীয় আসরের জন্য চুক্তিবদ্ধ পাকিস্তানের শীর্ষ খেলোয়াড়রা হলেন- শহিদ আফ্রিদি, সাঈদ আজমল, উমর আকমল, কামরান আকমল, ওয়াহাব রিয়াজ, ইয়াসির শাহ, কামরান আকমল, মোহাম্মদ ইরফান, ইমাদ ওয়াসিম প্রমুখ।

Related posts