November 13, 2018

বিতর্ক ভুলে ফুটবলে মনোযোগ বার্সা কোচের

Barcelona-1

 

কোপা দেল রের শেষ ষোলোর প্রথম পর্বে ঘরের মাঠে ৪-১ গোলে জিতেছিল বার্সেলোনা। এসপানিওলের মাঠে হতে যাওয়া ফিরতি পর্বে তাই বড় কোনো অঘটন এড়ালেই কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠে যাবে লিওনেল মেসি-নেইমাররা। তবে এ বছরের প্রথম ম্যাচে এই মাঠ থেকেই ড্র করে ফিরতে হয়েছিল তাদের। এবার তাই একটু বাড়তি সতর্ক থাকতেই হচ্ছে এনরিকের দলকে।

দল দুটি একই শহরের হওয়ায় এমনিতেই তাদের লড়াই বাড়তি উত্তাপ ছড়ায়। সঙ্গে এবার যোগ হয়েছে প্রথম পর্বের কিছু ঘটনা। গত বুধবারের ওই ম্যাচে এসপানিওলের দুজন খেলোয়াড় লাল কার্ড দেখেছিলেন। আর ম্যাচ শেষে টানেলে তাদেরকে উত্ত্যক্ত করার অপরাধে বার্সেলোনার স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেস দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ হন।

বিষয়গুলো নিশ্চিতভাবেই বুধবারের লড়াইয়ে বাড়তি উত্তাপ ছড়াবে। তবে সে ভাবনায় বুঁদ হয়ে থাকতে নারাজ এনরিকে।

গত শনিবার লিগে গ্রানাদাকে ৪-০ গোলে হারানোর পর এনরিকে বলেন, “আমি চাই, ফুটবলে মনোযোগ থাকুক, তবে কি হয় দেখা যাবে।”

শুধু ফুটবল বিবেচনায় নিলে এসপানিওলের মাঠে সহজ জয়ের প্রত্যাশা করতেই পারে বার্সেলোনা। খেলোয়াড়দের দুর্দান্ত ছন্দে থাকাটাই এর প্রধান কারণ।

লড়াইটা প্রতিপক্ষের মাঠে হলেও একটা বাড়তি প্রেরণা থাকছে অতিথিদের; গত সোমবার রাতে পঞ্চমবারের মতো বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জিতেছেন তাদের সেরা তারকা লিওনেল মেসি। সেরার ওই মঞ্চে ছিলেন তৃতীয় হওয়া নেইমারও। গত বছর দলটিকে পাঁচটি শিরোপা জেতানো লুইস এনরিকে পেয়েছেন ফিফা বর্ষসেরা কোচের পুরস্কার। আর ফিফা বর্ষসেরা একাদশে জায়গা পেয়েছে দলটির চার জন খেলোয়াড়।

এত এত প্রাপ্তির উপলক্ষ দারুণ এক জয় দিয়েই নিশ্চয় উদযাপন করতে চাইবে বার্সেলোনা।দল দুটি একই শহরের হওয়ায় এমনিতেই তাদের লড়াই বাড়তি উত্তাপ ছড়ায়। সঙ্গে এবার যোগ হয়েছে প্রথম পর্বের কিছু ঘটনা। গত বুধবারের ওই ম্যাচে এসপানিওলের দুজন খেলোয়াড় লাল কার্ড দেখেছিলেন। আর ম্যাচ শেষে টানেলে তাদেরকে উত্ত্যক্ত করার অপরাধে বার্সেলোনার স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেস দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ হন।

বিষয়গুলো নিশ্চিতভাবেই বুধবারের লড়াইয়ে বাড়তি উত্তাপ ছড়াবে। তবে সে ভাবনায় বুঁদ হয়ে থাকতে নারাজ এনরিকে।

গত শনিবার লিগে গ্রানাদাকে ৪-০ গোলে হারানোর পর এনরিকে বলেন, “আমি চাই, ফুটবলে মনোযোগ থাকুক, তবে কি হয় দেখা যাবে।”

শুধু ফুটবল বিবেচনায় নিলে এসপানিওলের মাঠে সহজ জয়ের প্রত্যাশা করতেই পারে বার্সেলোনা। খেলোয়াড়দের দুর্দান্ত ছন্দে থাকাটাই এর প্রধান কারণ।

লড়াইটা প্রতিপক্ষের মাঠে হলেও একটা বাড়তি প্রেরণা থাকছে অতিথিদের; গত সোমবার রাতে পঞ্চমবারের মতো বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জিতেছেন তাদের সেরা তারকা লিওনেল মেসি। সেরার ওই মঞ্চে ছিলেন তৃতীয় হওয়া নেইমারও। গত বছর দলটিকে পাঁচটি শিরোপা জেতানো লুইস এনরিকে পেয়েছেন ফিফা বর্ষসেরা কোচের পুরস্কার। আর ফিফা বর্ষসেরা একাদশে জায়গা পেয়েছে দলটির চার জন খেলোয়াড়।

এত এত প্রাপ্তির উপলক্ষ দারুণ এক জয় দিয়েই নিশ্চয় উদযাপন করতে চাইবে বার্সেলোনা।

Related posts