November 17, 2018

বিতর্কের অবকাশ নেই ত্রিশ লক্ষ শহীদ নিয়ে

images

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ারুল হক বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধে যে ৩০ লাখ শহীদ হয়েছে, তা নিয়ে বিতর্কের কোনো সুযোগ নেই।

মঙ্গলবার মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে নেত্রকোনার আতাউর রহমান ননী ও মো. ওবায়দুল হক তাহেরের ফাঁসির রায় ঘোষণাকালে এই পর্যবেক্ষণ দেন তিনি।

বিচারপতি আনোয়ারুল হক বলেন, ‘এ আসামিদের (তাহের ও ননী) সর্বোচ্চ দণ্ড দেয়া হয়েছে। কেন না ৩০ লাখ শহীদের রক্তের সঙ্গে আপস করার কোনো সুযোগ নেই।’

বিচারপতি আনোয়ারুল হক বলেন, ‘এ আসামিদের (তাহের ও ননী) সর্বোচ্চ দণ্ড দেয়া হয়েছে। কেন না ৩০ লাখ শহীদের রক্তের সঙ্গে আপস করার কোনো সুযোগ নেই।’

৩০ লাখ শহীদ নিয়ে যে বিতর্ক হয়েছে, এ রায়ের মাধ্যমে তার অবসান হলো বলেও মন্তব্য করেন ট্রাইব্যুনাল।

এর আগে বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বাধীন ট্রাইব্যুনালের তিন সদস্যের বেঞ্চ ননী ও তাহেরকে ফাঁসির আদেশ দেন।

বিচারিক প্যানেলের সদস্যরা হলেন, বিচারপতি শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ সোহরাওয়ার্দী।

গত ২১ ডিসেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে খালেদা জিয়া বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক আছে। আজকে বলা হয়, এত লাখ লোক শহীদ হয়েছে। এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম উল্লেখ না করে খালেদা জিয়া দাবি করেন, ‘তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা চাননি। তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন। জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা না দিলে মুক্তিযুদ্ধ হতো না।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার এ বক্তব্যের পর থেকে তীব্র বিতর্ক চলছে। এরই মধ্যে গত ২৫ জানুয়ারি ঢাকার সিএমএম আদালতে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী।

এ মামলায় আগামী ৩ মার্চের মধ্যে আদালতে হাজির হয়ে অভিযোগ বিষয়ে খালেদা জিয়াকে ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ সমন জারি করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাশেদ তালুকদার।

এর মধ্যেই আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল শহীদ সংখ্যা নিয়ে বিতর্কের অবকাশ না থাকার কথা বললেন।

Related posts