September 19, 2018

বার্নিকাটের মন্তব্যে উত্তপ্ত পার্লামেন্ট

ঢাকাঃ জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদবিরোধী লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে অংশীদার হিসেবে দেখে মন্তব্য করে দেশটির রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেছেন, বাংলাদেশ যাতে এই সংকট থেকে বেরিয়ে আসতে পারে সেজন্য সহযোগিতা করছে তার দেশ। বাংলাদেশকে দখল করার কোন মনোভাবই যুক্তরাষ্ট্রোর নেই। জঙ্গি হামলা প্রতিরোধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহযোগিতা করার বিষয়ে বার্নিকাটের এমন মন্তব্য নিয়ে বৃহস্পতিবার পার্লামেন্ট ছিল উত্তপ্ত। যুক্তরাষ্ট্র সহযোগিতা দেওয়ার বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম পার্লামেন্টে বলেন, বাংলাদেশে স্বাধীন রাষ্ট্র। এই রাষ্ট্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চেয়েও শক্তিশালী। স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় আমেরিকা আমাদের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিল। এমনকি পাকিস্তানকে অস্ত্র দিয়ে সহযোগিতা করেছে। সেই ভুলের জন্য আমেরিকা এখন পর্যন্ত দুঃখ প্রকাশ করেনি। তারাই আজ জঙ্গি দমনের নামে বাংলাদেশ দখল করতে চায়। অথচ তাদের দেশেই টুইন টাওয়ার ও পুলিশের উপর হামলার ঘটনা ঘটছে। তখন তো আমরা আমেরিকা দখল করার চেষ্টা করি না।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা চলছি। আমরা কারো কাছে মাথানত করবো না।

শেখ ফজলুল করিম সেলিম পার্লামেন্টে এমন বক্তব্য দেওয়ার বিষয়ে স্পিকার বলেন, আপনি এভাবে বলতে পারেন না। আপনি অন্য বিষয়ে কথা বলুন। আমেরিকার ভূমিকা নিয়ে পার্লামেন্টে আলোচনা না করার বিষয়ে বার বার বন্ধ করতে চাইলেও বন্ধ হয়নি।

পার্লামেন্টে শেখ ফজলুল করিম সেলিমের এমন বক্তব্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, জঙ্গি ও সন্ত্রাস প্রতিরোধে আমেরিকা আমাদের সহযোগিতা করতে চায়, দেশ দখল করতে নয়। জঙ্গি দমনে মার্শা বার্নিকাট যা বলেছেন তা যুক্তি সঙ্গত। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশ দখল করতে চায় এমন বক্তব্য দেশের দায়িত্বশীল ব্যক্তি দিতে পারেন না।

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আওয়ামী লীগের দলীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেন, পার্লামেন্টে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাদেরকে মন্ত্রী বানিয়েছেন তারা কেউ অন্যায়ের কাছে মাথানত করতে পারেন না। শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কেন কোনো দেশেই বাংলাদেশের প্রভু হতে পারে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তা প্রমাণ হয়েছে।

শামীম ওসমান বলেন, বাংলাদেশ জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে। এই সহযোগিতায় একসঙ্গে থাকার আশ্বাস দিয়েছে আমেরিকা। আমরা এমন বক্তব্য দেব না যাতে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

এদিকে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বলেন, এদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট যেভাবে বক্তব্য দিয়েছেন তা বলা উচিত হয়নি। কারণ তাদের দেশেও তো জঙ্গি হামলা ও সন্ত্রাসী হামলা হচ্ছে। হত্যাকান্ডের ঘটনার ঘটছে। বাংলাদেশের তুলনায় গত বছর আমেরিকায় ১০ ভাগ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এমনকি প্রতিদিন ৮ থেকে ৯ জন হত্যাকান্ডের শিকার হচ্ছে। আর সেই রাষ্ট্র সন্ত্রাস দমনে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করতে চায়।

Related posts