September 18, 2018

জানাজায় লাখো লোকের ঢল

ঢাকাঃ  দেশে এবং প্রবাসে লাখ লাখ মানুষ জামায়াতের আমির ও সাবেক মন্ত্রী মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর নামাজে জানাজায় এবং গায়েবানা নামাজে জানাজায় অংশগ্রহণ করে তার জন্য দোয়া করায় তাদের আন্তরিকভাবে মুবারকবাদ জানিয়েছে জামায়াত।

দলের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডাঃ শফিকুর রহমান আজ এক বিবৃতিতে বলেন, মাওলানা নিজামী তার অবদানের জন্য এ দেশের জনগণের হৃদয়ে চিরদিন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

তিনি বলেন, সরকারের বাধা, বিপত্তি, রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে আজ ১১ মে দেশে ও প্রবাসে লাখ লাখ জনতা মাওলানা নিজামীর নামাজে জানাজা ও গায়েবানা নামাজে জানাজায় শরীক হয়েছেন এবং তার শাহাদাত কবুলের জন্য কায়মনবাক্যে আল্লাহর কাছে দোয়া করেছেন। তার নামাজে জানাজায় ও গায়েবানা নামাজে জানাজায় লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতিই প্রমাণ করে, তিনি একজন নির্দোষ মানুষ ছিলেন। সরকারের বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে নামাজে জানাজায় ও গায়েবানা নামাজে জানাজায় দেশে ও প্রবাসে যারা শরীক হয়েছেন তাদের সবাইকে আমি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে আন্তরিকভাবে মুবারকবাদ জানাচ্ছি এবং তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

চট্টগ্রামে বিশৃংখলা সৃষ্টির অপচেষ্টার নিন্দা : চট্টগ্রামের প্যারেড ময়দানের আশে-পাশে কটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে গায়েবানা নামাজে জানাজায় আওয়ামী ছাত্রলীগ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালিয়েছে অভিযোগ করে এবং রাজশাহীতে নামাজে জানাজার পর জামায়াতের ১২ জন নেতা-কর্মীকে ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে জামায়াতের আটজন, রাজশাহী মহানগরী আমির অধ্যাপক ডঃ আবুল হাশেমকে পুলিশের গ্রেফতার করার ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছে জামায়াত।

কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও সাবেক এমপি হামিদুর রহমান আযাদ আজ এক বিবৃতিতে বলেন, মাওলানা নিজামীর গায়েবানা নামাজে জানাজার পর জামায়াতের নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করার মাধ্যমে সরকারের একদলীয় ফ্যাসিবাদী চরিত্রই অত্যন্ত নগ্নভাবে প্রকাশিত হয়েছে।

তিনি বলেন, চট্টগ্রামের প্যারেড ময়দানে প্রশাসনের অনুমতিক্রমেই গায়েবানা নামাজে জানাজার আয়োজন করা হয়। কিন্তু ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা প্যারেড মাঠের আশেপাশে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। তবে গায়েবানা জানাজা যথারীতি অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঢাকার বায়তুল মোকাররমে আয়োজিত গায়েবানা নামাজে জানাজা শেষে ছাত্রশিবিরের তিনকর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গায়েবানা নামাজে জানাজার মত একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের পর অংশগ্রহণকারীদের গ্রেফতারের মাধ্যমে সরকারের ইসলাম বিরোধী চরিত্রই অত্যন্ত নগ্নভাবে প্রকাশিত হয়েছে। রাজশাহী মহানগরী জামায়াতের আমির অধ্যাপক ডঃ আবুল হাশেমসহ সারাদেশে জামায়াত ও ছাত্রশিবিরের গ্রেফতারকৃত সব নেতা-কর্মীকে অবিলম্বে মুক্তি দেয়ার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।

অপর এক বিবৃতিতে জামায়াতের পাবনা জেলার ভারপ্রাপ্ত আমির, জেলা সেক্রেটারি মাওলানা নিজামীকে ফাঁসীর কাষ্ঠে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।নয়া দিগন্ত

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/১১ মে ২০১৬

Related posts