September 22, 2018

বাংলাদেশ সীমান্তের মাদ্রাসাগুলো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের আখড়া

ঢাকাঃ  বাংলাদেশের সীমান্ত অঞ্চলে থাকা মাদ্রাসাগুলো ভারতে হওয়া সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের আখড়া বলে মন্তব্য করেছেন বিজিপির পশ্চিম বঙ্গ প্রদেশের প্রেসিডেন্ট দিলিপ ঘোষ।

এ সময় তিনি ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত পরিপূর্ণ রূপে বন্ধ করে দেয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন।

ঘোষ বলেন, মৌলবাদী, সন্ত্রাসী ও জাতীয়তা বিরোধী কর্মকাণ্ডের উৎপত্তিস্থল বাংলাদেশের সীমান্তে থাকা মাদ্রাসাগুলো।

তিনি নিজের এই বক্তব্যকে সমর্থনের জন্য পশ্চিম বঙ্গের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বক্তব্যের কথা উল্লেখ করে বলেন, তিনি এক সময় বলেছিলেন ভারতের জাতীয়তাবাদ বিরোধী ও মৌলবাদী গোষ্ঠীর জন্ম হয় সীমান্তে থাকা মাদ্রাসাগুলো থেকে। পরবর্তীতে চাপের মুখে এ বক্তব্য ফিরিয়ে নিয়েছিলেন বুদ্ধদেব।

কিন্তু বিষয়টিকে হালকাভাবে নেয়ার কোন কারণ নেই। কারণ একজন মুখ্যমন্ত্রী এমনি এমনি কোন কথা বলেন না। পুলিশ ও ইনভেস্টিগেশন ব্যুরোর দেয়া রিপোর্ট অনুসারেই তিনি কথা বলেন।

এ সময় ঘোষ আরো বলেন, এই মাদ্রাসাগুলো বিদেশি অর্থায়নে পরিচালিত হয়। আর তারাই জাতীয়তাবাদ বিরোধী কার্যক্রম থেকে শুরু করে সন্ত্রাসী কার্যক্রম, অবৈধ গো পাচার এবং চোরাচালান চক্রের সঙ্গে জড়িত।

উল্লেখ্য, বিতর্কিত মন্তব্য করার জন্য ভারত জুড়ে বিখ্যাত এই বিজেপি নেতা। এর আগে তিনি বলেছিলেন, মৌলবাদীরা তাদের আখড়া হিসেবে বেছে নিয়েছে জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়, জয়দেবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ও হায়দ্রাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়। তার এই মন্তব্যে ভারত জুড়ে তীব্র সমালোচনা হয়।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

Related posts