September 22, 2018

বাংলাদেশ-ভারতের ভিসা ব্যবস্থা বাতিলের দাবি গভর্নরের

প্রকাশিত: ২৭ মার্চ ২০১৬, রোববার
মমিনুল ইসলাম: ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের গভর্নর তথাগত রায় বলেছেন, তিনি ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে ভিসা ব্যবস্থা বাদ দেয়ার পক্ষে। এর ফলে জনগণের আন্তঃসীমান্ত চলাফেরা সহজ হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
শনিবার ত্রিপুরায় বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনের উদ্যোগে আয়োজিত স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
গভর্নর প্রশ্ন রেখে বলেন, কেন ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ভিসা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে? এ ভিসা পদ্ধতি অবশ্যই বর্জন করতে হবে। আমি শিগগিরই এ ভিসা পদ্ধতি বাদ দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে প্রস্তাব করব।
বিজেপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক এ সদস্য আরও জানান, দুদেশের নেতৃবৃন্দ একত্রে বসতে পারেন। তারা ভিসা ব্যবস্থা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। এটা দুদেশের জনগণের সহজ চলাফেরা নিশ্চিত করবে।

তিনি মন্তব্য করেন, বাংলাদেশ ও ভারতের বন্ধুত্ব একটি শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। কার্যত কারণেই ভিসা অপ্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে।

তথাগত ত্রিপুরার গভর্নর নিযুক্ত হওয়ার আগে বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ ইউনিটের সভাপতি ছিলেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নাম উল্লেখ না করে তিনি বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী তিস্তার পানি বিরোধের সমাধানে আগ্রহী। কিন্তু নির্দিষ্ট মহল এ বিরোধ চায়। এটা অত্যন্ত পরিতাপের বিষয়।

তিনি আরও বলেন, আমাদের ইতিহাস চেপে রাখা উচিত হবে না। বাস্তবতা ও বিশ্বাসের ওপর নির্ভর করে দুদেশ ও জনগণের স্বার্থে সম্পর্ক অবশ্যই অব্যাহত রাখতে হবে।
তথাগত জার্মানির পুনরেকত্রীকরণ ও ভারত, নেপাল ও ভুটানের মধ্যে ভিসাহীন চলাফেরার কথা তুলে ধরেন। বলেন, ঊর্ধ্বগামী সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সাংস্কৃতিক বিনিময় অবশ্যই বাড়াতে হবে।

রবীন্দ্র শতবার্ষিকীর এ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও ভারতের শিল্পী ও নৃত্যশিল্পীরা গান ও নৃত্য পরিবেশন করেন। নিউজএক্স।

Related posts