September 22, 2018

বাংলাদেশের উদ্যোগে জাতিসংঘে ফ্রেন্ডস অব মাইগ্রেশনের পথ চলা!

হাকিকুল ইসলাম খোকন, নিউইয়র্কঃ  “ফ্রেন্ডস অব মাইগ্রেশন” গ্রুপের পথ চলা ১৩ মে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে। ১৩ মে জাতিসংঘে আয়োজিত এক সভার মাধ্যমে এর সূচনা হয়। নিউইয়র্ক বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন এই সভা আয়োজন করে।

জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন সভায় সভাপতিত্ব করেন এবং প্রধান সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন।

বেনিন, মেক্সিকো ও সুইডেন এ গ্রুপের অপর তিন কো-চেয়ার। বিশ্বের প্রায় সকল মহাদেশ থেকে এ পর্যন্ত মোট ২২টি দেশ এই বন্ধু গ্রুপের সদস্য হয়েছে এবং প্রতিদিনই নতুন রাষ্ট্র এই গ্রুপে যোগদানের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করছে।

এ গ্রুপের মূল লক্ষ্য হচ্ছে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় প্রদত্ত বৈশ্বিক নির্দেশনার আলোকে নিরাপদ, নিয়মতান্ত্রিক, নিয়মিত ও দায়িত্বশীল বহির্গমণ কার্যকর করার মাধ্যমে মাইগ্রেন্ট কমিউনিটির কল্যাণ ও অধিকার নিশ্চিত করা। সভায় গ্রুপের সদস্যরা লক্ষ্য অর্জনে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা চালানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা মাইগ্রেন্ট কমিউনিটির সার্বিক কল্যাণ অর্জনের লক্ষ্যে আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের আহবানে শরণার্থী ও অভিবাসী ব্যাপকহারে চলাচল মোকাবেলায় এক উচ্চ পর্যায়ের সভা অনুষ্ঠিত হবে। জাতিসংঘে অনুষ্ঠিতব্য এ সভায় “ফ্রেন্ডস অব মাইগ্রেশন” গ্রুপ তাদের লক্ষ্য অর্জনে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ থেকে ইতিবাচক প্রতিশ্রুতি আদায়ের চেষ্টা চালাবে।

জাতিসংঘের ডেপুটি সেক্রেটারী জেনারেল ইয়ান এলিয়াসন সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। তিনি এই বন্ধু গ্রুপ গঠনের তাৎপর্য তুলে ধরে বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি গ্লোবাল ফোরাম ফর মাইগ্রেশন এন্ড ডিভালপমেন্ট (জিএফএমডি) এর বর্তমান চেয়ার হিসেবে বাংলাদেশের গঠনমূলক ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি আগামী ডিসেম্বরে ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য ৯ম জিএফএমডি মহাসম্মেলনের সাফল্য কামনা করেন।

সভায় জাতিসংঘে গ্লোবাল মাইগ্রেশন গ্রুপের চেয়ার লক্ষী পূরীসহ ফ্রেন্ডস অব মাইগ্রেশন গ্রুপের বিভিন্ন সদস্য রাষ্ট্রের স্থায়ী প্রতিনিধি, কূটনীতিক এবং জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহে কর্মরত বিভিন্ন কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/১৪ মে ২০১৬

Related posts