September 22, 2018

বলিউড তারকাদের মজার যত ঘটনা

বিনোদন ডেস্ক : পর্দায় অভিনেতা আর অভিনেত্রীদের আমরা ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে দেখে থাকি। এখানে কাউকে খুব রোমান্টিক, আবার কাউকে খুবই সিরিয়াস কিংবা অত্যাধিক রাগি চরিত্রে দেখে থাকি আমরা। এসব চরিত্রগুলো ফুটিয়ে তুলতে একেকজন অভিনেতা অভিনেত্রীকে অনেক পরিশ্রম করতে হয়।

এদিকে শুটিং সেটে এর জন্য ঘামও ঝড়াতে হয়। তবে শুটিং সেটে যেমন কষ্ট করেন একজন তারকা, তেমনই তাদের অনেক মজার ঘটনাও আছে। যা অগোচরেই থেকে যায়। আজ তেমনই কিছু মজার ঘটনা তুলে ধরা হচ্ছে।

রণবীর কাপুর : তিনি যে একটু দুষ্ট প্রকৃতির তা কারোরই আজানা নয়। ‘এ জাওয়ানি হে দেওয়ানি’ সিনেমার শুটিংয়ের সময় আদিত্য রয় কাপুর এবং কল্কি কোচলানকে রাতে খাওয়ার পর পানির সাথে ভদকা মিশিয়ে খাইয়ে দিয়েছিলেন তিনি। যদিও তারা বেশ পরে জানতে পেরেছিলেন যে, এ কাজ রণবীর করেছিল।

অজয় দেবগন : বলিউড সিনেমায় তাকে একজন রাগি মানুষ হিসেবেই দেখা যায়। কিন্তু বাস্তবে তিনি বেশ নরম স্বভাবের। তবে মাঝে মাঝে সুযোগ পেলে দুষ্টমি করতে একদমই ভুল করেন না। একবার গোলমাল সিনেমার দিনের শুটিং শেষে বিরতি দিয়ে পরিচালক রোহিত শেঠি  হোটেলের রুম থেকে বের হয়ে কাজের জন্য বাইরে গিয়েছিলেন। এই সুযোগে অজয় মেকআপ ম্যানের সাথে যুক্তি করে রোহিতের রুমে রক্তের দাগ লাগিয়ে সবাইকে ভয় ধরিয়ে দিয়েছিলেন। এতে রোহিত ফিরে না আসা পর্যন্ত সবাই ভয়ে ছিল। তবে ফিরে আসার পর সবাই বুঝতে পেরেছিলেন বোকা বানানোর জন্য কাজটি অজয়ই করেছিল।

অক্ষয় কুমার : সিনেমাতেও যেমন মাঝে মাঝে তাকে কমেডি চরিত্রে দেখা যায় বাস্তবেও তিনি কৌতুকপ্রিয়। ‘স্পেশাল ২৬’ সিনেমার শুটিংয়ে কাজল আগারওয়াল যখন অন্য কাজে ব্যস্ত ছিলেন, সেই সুযোগে কাজলের ব্যাগ থেকে ফোন নিয়ে সেখানে কয়েকটি কাটা চামচ রেখে দিয়েছিলেন। আর এতেই কান্নাকাটি শুরু করে দিয়েছিলেন কাজল। পরে অবশ্য ফোন ফিরে পাওয়ার সময় সেটের সকলের কাছে বোকা হয়ে গিয়েছিলেন কাজল।

সালমান খান :  ২০০৫ সালে ‘লাকি : নো টাইম ফর লাভ’ সিনেমার শুটিংয়ের সময় এক হোটেলেই ছিলেন তিনি ও স্নেহা উল্লাহ এবং মিঠুন চক্রবর্তী। কিন্তু হোটেলে সালমান খানের বেশ পরে ওঠেন মিঠুন। কিন্তু সালমান বুদ্ধি করে মিঠুনকে তার রুমের চাবি দিতে বলেছিলেন, আর এতেই বোকা বনে গিয়েছিলেন মিঠুন। পরে ঘটনাটা নিয়ে বেশ হাসাহাসিও হয়েছিল।

বিদ্যা বালান : সুযোগ পেলেই সবাইকে নিয়ে আনন্দ করতে তার জুড়ি নেই। ‘দ্য ডার্টি পিকচার’ সিনেমার শুটিংয়ে তিনি একবার আজব এক কলম নিয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন। সবাইকে কলমটির সুইচ চাপ দিতে বলা হলেও কেউই ভয়ে ধরেননি। কিন্তু তখন তুষার কাপুর সাহস করে এগিয়ে কলমটির সুইচ চাপ দেন এবং ইলেকট্রিক শক খান। আর এতে সবাই বেশ মজা পেলেও তুষার বেশ ভড়কে গিয়েছিলেন।

শহিদ কাপুর : ‘শানদার’ সিনেমার শুটিং চলাকালে আলিয়াকে বেশ ভুগিয়েছিলেন তিনি। সিনেমার শুটিং শেষ হওয়ার পর এ কথা আলিয়া বেশ আনন্দেই প্রকাশ করেছিলেন। ‘শানদার’র শুটিং চলাকালে শহিদ নাকি আলিয়াকে প্রায়ই গল্পের সময় ভূতের গল্প শোনাতেন আর তাতেই নাকি রাতে হোটেলের রুমে একা একা ঘুমানো আলিয়ার জন্য বেশ কষ্টসাধ্য ছিল।

 

Related posts