September 25, 2018

বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টি না হওয়ায় ধানের জমি ফেটে চৈচির!

সুমন মিয়া
দিনাজপুরঃ
খাদ্য শষ্যোর ভান্ডার হিসাবে খ্যাত দিনাজপুর জেলা। এই জেলার মধ্যে কাহারোল উপজেলা ধান চাষাবাদের জন্য অন্যতম। ঋতু চক্র হিসাবে বর্তমান বর্ষাকাল চলেও বর্ষার ভরা মৌসুমে পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় কাহারোল উপজেলায় অধিকাংশ জমির মাটি ফেটে চৈচির হয়ে যেতে দেখা যাচ্ছে। ফলে বৃষ্টির জন্য এখন হাহাকার হয়ে উঠেছে এই অ লের কৃষকরা। অত্র উপজেলায় কয়েক সপ্তাহ ধরে বৃষ্টিপাত তেমন না হওয়ার কারণে কৃষকদের রোপণকৃত আমন ধানের জমি শুকিয়ে গিয়ে বৃষ্টির অভাবে চৈচির হয়ে যাচ্ছে। পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় আমন ধানের চারা শুকিয়ে যাওয়ার উপকরণ হয়ে পড়ছে তেমনি পানির অভাবে কৃষকরা চলতি পাট মৌসুমে পাট জাগ দিতে পারছে না। অনেক কৃষক পাট কেটে আটি বেঁধে রেখেছে পানির অপেক্ষায়।

পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত হলেই এসব পাট জাগ দিবে বলে উপজেলার পাহাড়পুর গ্রামের পাট চাষি মোঃ রবিউল ইসলাম জানায়, খাদ্যের প্রধান রোপা আমন ধানের চারা কৃষকরা শত কষ্ট করে রোপণ করার পর থেকেই অদ্যবধি জমিতে পানি না থাকায় দিন দিন শুকিয়ে যাচ্ছে আমন ধানের ক্ষেত। আবার কোনো কৃষিক তাদের আমন ধানের চারা বাচিয়ে রাখার জন্য স্যালো মেশিন দিয়ে সেচ দিতে দেখা যাচ্ছে। যে সব এলাকায় সেচের ব্যবস্থা নেই সেই সব এলাকায় কৃষকরা তাদের আমন ধানের জমিতে সেচ দিতে না পারায় তারা এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

গতকাল শনিবার পর্যন্ত অত্র উপজেলায় কোনো বৃষ্টিপাত হয়নি। আকাশে মেঘের লুকোচুরি খেলা খেললেও বৃষ্টির দেখা মিলছে না বেশ কিছুদিন থেকে। দিনের বেলা প্রচন্ড রোদের তাপমাত্রা ও রাতে প্রচন্ড গরম আবহাওয়া বিরাজ করছে কাহারোল উপজেলায়। এদিকে উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, চলতি আমন মৌসুমে কাহারোল উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে ১৪ শত হেঃ জমিতে ধান চাষাবাদের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

কাহারোলে ১৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সেতুর উদ্বোধন

শুক্রবার ১২ আগস্ট সন্ধ্যায় দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার ৫নং সুন্দরপুর ইউনিয়নের সাইনগর ঘুঘুর বাজারের দক্ষিন পার্শে খালের উপর ৩১ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ও পুর্ব মল্লিকপুর নজরুল মাষ্টারের বাড়ীর পার্শে ১৬ লক্ষ টাকা ব্যায় নব নির্মিত আরসিসি সেতুর উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল হাই সরকার, ৫নং সুন্দরপুর ইউনিয়নের নব-নিবাচিত চেয়ারম্যান মো. শরিফ উদ্দীন মাষ্টার, ৫নং সুন্দরপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. নাসিরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল হোসেন, ৫নং সুন্দরপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মজিদুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক মো. হামিদুল ইসলাম, দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ সাবেক এলাকার পরিচালক ও সভাপতি আলহাজ্ব মো. মাজেদুর রহমান খোকনসহ ৫নং সুন্দরপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

Related posts