September 22, 2018

বর্বরতার শেষ কোথাই ? ফিলিস্তিনি শিশুকে নির্মমভাবে পুড়িয়ে হত্যা !

১৮ মাস বয়সী ফিলিস্তিনি শিশুকে নির্মমভাবে পুড়িয়ে হত্যা করেছিল ইসরাইলিরা। বর্বরতা সেখানেই থেকে থাকেনি। ইহুদিদের এক বিয়ের ভিডিওতে দেখা গেছে, সদলবলে ওই শিশু হত্যা উদযাপন করছে আমন্ত্রিতরা। এ নিয়ে তীব্র নিন্দার ঝড় বইছে বিশ্বজুড়ে।

বুধবার রাতে ইসরাইলের চ্যানেল ১০ ভিডিওটি প্রচার করে। তিন সপ্তাহ আগে ভিডিওটি ধারণ করা। এতে দেখা যায়, জেরুজালেমে এক বিয়ের অনুষ্ঠানে বন্দুক, ছুরি নিয়ে নেচে গেয়ে উদযাপন করছে একদল ইসরাইলি তরুন।

মুখোশধারী এক তরুনকে দেখা গেছে একটি পেট্রোলবোমা উচিয়ে ধরতে। আর অপর তরুন আলি দাওয়াবশেহ নামের ওই শিশুর ছবিকে ছুরিকাঘাত করছে। ১৮ মাসের আলিকে জুলাই মাসে অগ্নিসংযোগ করে জীবিত পুড়িয়ে হত্যা করেছিল ইসরাইলি দখলদারেরা। দখলিকৃত পশ্চিম তীরের দুবা গ্রামে তারা দাওয়াবশেহ পরিবারের বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। ওই হামলায় আলি ও তার পিতা-মাতা নিহত হন। আলির চার বছরের ভাই গুরুতর আহত হন। নৃশংস ওই হামলায় একমাত্র বেচে যাওয়া ব্যক্তি সে। ওই ভিডিওর এক পর্যায়ে দেখা যায়, সামরিক মানের রাইফেল আর পিস্টল একজনের হাত থেকে আরেক জনের হাতে দেয়া হচ্ছে। এমনকি শিশুদের হাতেও। চ্যানেল ১০ এর রিপোর্টে বলা হয়, দখলদারদের কাছে অস্ত্রগুলো ইস্যু করেছে ইসরাইলি সেনাবাহিনী।

বাইবেলের আয়াত বিকৃত করে তারা গান গেয়েছে ফিলিস্তিনকে কটাক্ষ করে। আল-জাজিরার খবরে বলা হয়, ইসরাইলি রাজনীতিকরা দ্রুতই ওই ভিডিও ও বিয়ের অনুষ্ঠানের যোগ দেয়া মানুষদের নিন্দা জানায়। অনেক ফিলিস্তিনি আর ইসরাইলি মানবাধিকার গ্রুপ বলছে, ইসরাইলি নেতাদের উস্কানি আর দেশটির নীতিই এমন গোষ্ঠীগুলোর জন্য দায়ী। জায়োনিস্ট ইউনিয়ন ইলেক্টোরাল কোয়ালিশনের নেতা আইজ্যাক হেরজগ ওই বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেয়া ব্যক্তিদের সমালোচনা করে বলেছেন, তারা ভুলে গেছে একজন ইহুদি হওয়ার অর্থ কি। হেরজগ তার টুইটারে লিখেছেন, বিয়েতে যারা নেচে গেয়ে ঘুমন্ত একটি শিশু হত্যা উদযাপন করেছে, তারা ইহুদিও নয়, ইসরাইলিও নয়। তাদের যত দ্রুত সম্ভব কারাগারে পাঠানো উচিত।
দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদী/ডেরি

Related posts