November 18, 2018

‘বরিশালে ইউএনও হয়রানির শেষ দেখে নেব’

Captureঢাকা::

স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘বরিশালে ইউএনওকে হয়রানি কোনোমতেই গ্রহণযোগ্য বিষয় নয়। আমরা এর শেষ দেখে নেব। কারণ, আমার মনে হচ্ছে এটা সুপরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে। এর বিচার অবশ্যই হবে। এই মুহূর্তে দলমত বলে কিছু নেই।’

রোববার দুপুরে রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলায় নবনির্মিত মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের উদ্বোধন করতে গিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘অন্যায় হয়েছে, এর বিচার হবে। প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে দৃঢ়ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। মামলার পেছনে অন্য কোনো শক্তি মদদ দিয়েছে কি না, তা-ও খোঁজা হচ্ছে।’ প্রমাণ মিললে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান মন্ত্রী।

স্বাধীনতা দিবসের আমন্ত্রণপত্রে পঞ্চম শ্রেণির এক শিশুর আঁকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ব্যবহার করেছিলেন বরিশালের আগৈলঝাড়ার তৎকালীন ইউএনও তারিক সালমন। আমন্ত্রণপত্রে বঙ্গবন্ধুর ‘বিকৃত’ ছবি ব্যবহারের অভিযোগে গত ৭ জুন তার বিরুদ্ধে বরিশাল আদালতে মামলা করেন জেলা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ওবায়দুল্লাহ সাজু।

ওই মামলায় আদালতে হাজির হয়ে ইউএনও সালমন জামিন চাইলে আবেদন নাকচ করে তাকে হাজতে পাঠানো হয়। এর দুই ঘণ্টা পর জামিন পান ইউএনও। এ ঘটনায় ব্যাপক সমালোচনা শুরু হলে মামলার বাদী জেলা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক সাজুকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। পরে তিনি আদালত থেকে মামলাটি তুলে নেন।

মোহনপুরে জেলা পরিষদের ডাকবাংলোর সামনে মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। পরে তিনি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন করেন। সেখানে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন।

Related posts