September 22, 2018

বঙ্গবন্ধুকে স্বাধীনতা বিরোধীরা পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে: ডা. দীপু মনি

55
এ কে আজাদ, চাঁদপুর : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি বলেছেন, জাতির পিতা এমন একজন আদর্শের মানুষ ছিলেন, যার নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করে। স্বাধীনতার পর থেকে বঙ্গবন্ধু এই দেশটাতে শ্রেষ্ঠ দেশ হিসেবে গড়ে তুলবে চেয়েছেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে পুরো দেশটাকে ধ্বংশ করতে চেয়েছিলো হত্যাকারীরা। জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ অনেক আগেই উন্নত দেশে পরিণত হতো। ৭৫ এর ১৫ আগষ্টের হত্যাকান্ডছিলো স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের একটি সু-পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। তারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেনি, হত্যা করেছে একটি জাতিকে। তাঁর হত্যাকান্ডের মধ্য দিয়ে এ স্বাধীন জাতিকে কলঙ্কিত করেছিলো। খুনিরা ওই দিন বঙ্গবন্ধুর শিশু সন্তানসহ পুরো পরিবারের সদস্যদেরকে হত্যা করে। বিদেশে থাকার কারণে ভাগ্যক্রমে বেঁচে যায় বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। বুধবার (১৫ আগষ্ট) সকাল ১০টায় চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, পরিকল্পিত হত্যাকান্ড থেকে বেঁচে যাওয়া জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরেই এখন বাংলাদেশ দ্রæত এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের এ উন্নয়ন দেখে এখন সারা বিশ^ বিস্ময় হয়ে তাকিয়ে আছে। বাংলাদেশের এ উন্নয়ন ও অগ্রগতি অব্যাহত রাখার জন্য তিনি সকলকে একত্রিত হয়ে কাজ করার জন্য আহবান জানান। চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ডা. সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবিদা সুলতানার পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. জে আর ওয়াদুদ টিপু, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আহসান উল্লাহ আখন্দ, সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপনেত্রী অধ্যাপিকা মাসুদা নুর খান, জেলা মুক্তিযুদ্ধা সংসদের সহকারী কমান্ডার ইয়াকুব আলী, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতাউর রহমান পারভেজ।

Related posts