September 26, 2018

ফ্রান্সে মুসলিম শরণার্থীদের শিবিরে আগুন!

                                              ফ্রান্সে শরণার্থী শিবিরে আগুন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে পশ্চিমা বিশ্ব সৃষ্ট সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী দায়েশের কবল থেকে পালিয়ে আসা শরণার্থীদের উপর ফরাশী সন্ত্রাসীরা হামলা শুরু করেছে। এরই মধ্যে ফ্রান্সের বন্দর নগরী কালের জঙ্গলে অবস্থিত শরণার্থী শিবিরে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। জীবনের ভয়ে শরণার্থীরা পালাতে শুরু করেছে।

কালের ডেপুটি মেয়র ফিলিপ মিগ্নোনেট জানিয়েছেন, এ আগুন প্রায় দশ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। আমরা জানি না কিভাবে আগুন লেগেছে। দমকল বাহিনী আগুন নেভানোর চেষ্টা করছে। কিন্তু তীব্র বাতাসের কারণে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে খুব সমস্যা হচ্ছে।

আগুন লাগার পরপরই শরণার্থীরা পালাতে শুরু করেছেন জানালেও কালের ওই জঙ্গলে কতজন শরণার্থী অবস্থান করছিলেন তা বলতে পারেননি ডেপুটি মেয়র।

আগুনে কত সংখ্যক শরণার্থী হতাহত হয়েছে তাও বলতে পারছেন না কালের ডেপুটি মেয়র। তিনি বলছেন, “এখন পর্যন্ত আমরা নির্দিষ্ট করে কিছু জানতে পারিনি। কারণ আগুনের হল্কার কারণে উদ্ধারকর্মীরা এখনো ঘটনাস্থলেই ঢুকতে পারেনি। তীব্র বাতাস ও শরাণার্থী শিবিরে ব্যবহৃত বোতল ভর্তি গ্যাসের কারণে আগুণের আঁচ ভয়ানক হয়ে উঠছে।”

শুক্রবার সন্ধ্যায় এক যোগে প্যারিসের কেন্দ্রের কয়েকটি স্থানে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। এর মধ্যে আট হামলাকারীসহ ১২৭ জন নিহত এবং ১৮০ জন আহত হয়েছে।

হামলার পরপরই দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করে সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ওলাঁদ।

অনেকেই ধারণা করেন গত শুক্রবার রাতে প্যারিসে সন্ত্রাসবাদী হামলার প্রতিক্রিয়ায় উগ্রপন্থীরা শরণার্থী শিবিরে এ হামলা চালিয়েছে। অবশ্য মিগ্নোনেট এ ধারণাকে নাকচ করে দিয়েছেন এবং বলছেন, “প্যারিসের হামলা আর দ্য কালের আগুন লাগার ঘটনা দুটি পৃথক বিষয়।”

মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকা থেকে আসা শরার্থীরা দ্য কালের জঙ্গলে তৈরি করা শিবিরে অবস্থান করছেন। তাদের মধ্যে বেশির ভাগই ছিল যুক্তরাজ্য প্রবেশ প্রত্যাশী। তাদের সঙ্গে ফরাসী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কয়েকবার সংঘর্ষও হয়েছে।

গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts