November 16, 2018

ফুলবাড়ীর স্কুল শিক্ষার্থীদের হাতে শোভা পাচ্ছে কিরণমালা ও পাখি!

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার বিভিন্ন দোকানে পাঠ্যপুস্তকের সঙ্গে স্কুল শিক্ষার্থীদের হাতে শোভা পাচ্ছে কিরণমালা ও পাখি খাতা

মোঃ মেহেদী হাসান উজ্জল,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ  পোশাক-পরিচ্ছদের পর এবার ভারতীয় সিরিয়ালের প্রভাব পড়েছে কোমলমতি শিক্ষাথীদের লেখাপড়ার খাতায়। দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার বিভিন্ন দোকানে পাঠ্যপুস্তকের সঙ্গে স্কুল শিক্ষার্থীদের হাতে শোভা পাচ্ছে ভারতীয় সিরিয়ালের নায়ক-নায়িকাদের ছবিসংবলিত মলাটের খাতা।

বিক্রেতারা জানালেন, এসব খাতা শিশুদের কাছে বিক্রি করা দৃষ্টিকুটু হলেও এর চাহিদা ব্যাপক তাই তারা বিক্রি করছেন। দুই মাস আগের থেকে স্টার জলসার সিরিয়ালের খাতা বাজারে আসা শুরু হয়। এখন পর্যন্ত কিরণমালা ও পাখি খাতা বাজারে এসেছে। ঢাকার ব্যবসায়ীরা এসব খাতা সরবরাহ করছেন। স্টার জলসার ইষ্টি কুটুম, ঠিক যেন লাভ স্টোরি, চোখের তারা তুই, জলনুপুর, তুমি আসবে বলে, বধূবরণ, সব চরিত্র কাল্পণিক, মন দিয়ে কাছাকাছি, সিরিয়ালের প্রচ্ছদের ছবিসংবলিত খাতাও বাজারে আসার অপেক্ষায় রয়েছে বলে দোকানিরা জানান।

স্থানীয় শিক্ষক ও অভিভাবকেরা জানালেন, বিশেষত মায়েরা ভারতীয় চ্যানেলের সিরিয়ালের প্রতি আসক্ত হওয়ায় শিশু-শিক্ষাথীরাও এতে আসক্ত হচ্ছে। এরই প্রভাব পড়েছে খাতায়। একটি হচ্ছে কিরণমালা খাতা। এর মলাটে স্টার জলসার কিরণমালার সিরিয়ালের প্রধান চরিত্রের অভিনেত্রীর বড় ছবি রয়েছে। পাশেই লেখা রয়েছে রুপকথার রাজকন্যা কিরণমালা কি পারবে অচিনপুরের সুখ ফিরিয়ে আনতে? মলাটের নিচের অংশে রাখা হয়েছে শিক্ষার্থীদের ও বিদ্যালয়ের নাম, শ্রেণী, শাখা, বিষয় এবং রোল লেখার জায়গা। একইভাবে ‘পাখি’ খাতাতেও শোভা পাচ্ছে চরিত্রটিতে অভিনয় করা অভিনেত্রী ও এক অভিনেতার ছবি। পাশেই লেখা রয়েছে সিরিয়ালের নাম ‘বোঝে না সে বোঝে না’।

ফুলবাড়ী উপজেলার কয়েকজন প্রবীণ শিক্ষক আক্ষেপ করে বললেন, এখনকার শিক্ষার্থীরা দেশের কবি সাহিত্যিকদের চেনে না। এরা সিরিয়ালের অসুস্থ বিনোদনে অভ্যস্থ হয়ে হিংসা এবং পরশ্রীকাতরতা শিখছে। খাতা প্রস্তুতকারীরা বিক্রি বাড়ানোর জন্য জেনেশুনেই সিরিয়ালের নায়িকাদের ছবি ব্যবহার করছেন।

শিক্ষাথীদের হাতে এমন খাতা দেখে শিক্ষকেরাও বিব্রত। কয়েক জন শিক্ষক জানান, এতদিন শহীদ মিনার, জাতীয় স্মৃতিসৌধ, মুক্তিযুদ্ধ, গ্রামবাংলা এবং কবি-সাহিত্যিকের ছবি দিয়ে করা প্রচ্ছদের খাতা ব্যবহার করতে দেখা গেছে। এখন শিক্ষা উপকরণেও পড়েছে ভারতীয় সিরিয়ালের প্রভাব।

ফুলবাড়ী উপজেলার সচেতন সমাজের লোকেরা মনে করেন এসব ভারতীয় টিভি চ্যানেল আমাদের দেশীয় সংস্কৃতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। তাই তারা এই সব চ্যানেল বন্ধের জোর দাবি জানান।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts