November 25, 2017

ফলোআপঃ সাদুল্যাপুরে ইউপি সদস্যার দুর্ণীতির তদন্ত আবারও অনুষ্ঠিত

images

স্টাফ রিপোর্টার : গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে “ভূমিহীনের টাকা মেম্বারের পেটে” শীর্ষক প্রকাশিত সংবাদটির ২য় দফায় তদন্ত কার্য অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রহিমা খাতুন এর নির্দেশে মঙ্গলবার বিকেলে এ তদন্ত অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ণ কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান মনির তার কার্যালয়ে তদন্ত কার্যাদি সম্পাদন করেন। তদন্তকালে অভিযুক্ত মেম্বার শান্তনা বেগম ও বাদি রুপালী খাতুনের জবান বন্দি নেয়া হয়। এসময় স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে গত ৬ নভেম্বর সাদুল্যাপুর শহরতলীর আল-আমিনের বাড়ির উঠানে ১ম দফায় তদন্ত করেন বনগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান শাহীন সরকার।
প্রসঙ্গতঃ সাদুল্যাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের ৪,৫,৬ ওয়ার্ড এর মহিলা সদস্যা শান্তনা বেগম তারই প্রতিবেশী ভুমিহীন মজিবর রহমান ও ফুলু মিয়াসহ আরও কয়েকজন ভূমিহীন লোকের নিকট থেকে গুচ্ছগ্রামের ঘর বরাদ্দ দেয়ার নামে জনপ্রতি ২৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। এর পর অর্থলোভী মেম্বার শান্তনা বেগম ওইসব ভূমিহীনদের কোনরূপ ঘর বরাদ্দ না দিয়ে সমুদয় টাকা আতœসাতের চেষ্টা করে। এ ঘটনায় ভূমিহীনদের প্রদেয় টাকা উদ্ধারের জন্য বনগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান ও সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন মজিবরের স্ত্রী রূপালী বেগম ও ফুলু মিয়া। এ বিষয়ে সাংবাদিকরা সরেজমিনে তথ্য নিয়ে ফেসবুক সহ বিভিন্ন নিউজ পোর্টাল ও প্রিন্ট ভার্ষণ পত্রিকায় প্রকাশ করেন।
এদিকে প্রকাশিত সংবাদটি সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রহিমা খাতুন আমলে নিয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। এরই প্রেক্ষিতে দু’দফায় এ তদন্ত অনুষ্ঠিত হল।

Related posts