September 20, 2018

ফতুল্লায় গুলি ভর্তি বিদেশী পিস্তলসহ আটক ৫

রফিকুল ইসলাম রফিক
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় থেকে র‌্যাব ২ রাউন্ড গুলি ভর্তি ১ বিদেশী পিস্তল, ৩৯০ পিস ইয়াবা, মাদক বিক্রির নগদ ৯১ হাজার ৭শ’ টাকাসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে। জব্ধ করেছে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে ব্যবহৃত ১টি কালো রঙের পাজেরো জীপ।

নারায়ণগঞ্জ সিপিএসসি কোম্পানী অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নরেশ চাকমা এক বিজ্ঞপ্তিতে জানান, র‌্যাব-১১ এর একটি দল এএসপি মোঃ নাজিম উদ্দীন আল আজাদের নের্তৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানার কুতুব আইল শিবু মার্কেটের সুমাইয়া বিরিয়ানী হাউজ এর সামনে অস্ত্র ও মাদক বিরোধী অভিযান চালায়। অভিযানকালে একটি কালো পাজেরো জীপে অবস্থানরত তালিকাভূক্ত দুর্ধর্ষ শীর্ষ সন্ত্রাসী আব্দুর রশিদ ওরফে মিথুন (৪১) সহযোগী মামুন (২৮) বাদশা (৩০) শামীম (২২) গাড়ী চালক আলমগীর (৩০) কে গ্রেফতার করে। তাদের তল্লাসি চালিয়ে ৩৯০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, মাদক বিক্রির নগদ ৯১ হাজার ৭শ’ ৮৫ টাকা উদ্ধার বরেছে। র‌্যাব সদস্যরা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে ব্যবহৃত ১টি কালো রঙের পাজেরো জীপও (ঢাকা মেট্রো ঘ-১১-৬৮৪২) উদ্ধার করা হয়।

পরে জিজ্ঞাসাবাদে আসামী আব্দুর রশিদ ওরফে মিথুনের স্বীকারোক্তি মতে নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন নয়ামাটি কুতুবপুর মারকাস মসজিদ রোডে তার ইটালী প্রবাসী বড় বোন রোকেয়া বেগমের নির্মাণাধীন ০৩ তলা ভবনের ২য় তলায় তার ব্যবহৃত কক্ষ তল্লাশী করে বাথরুমের ফল্স ছাদ (ফাঁকা ছাদ) হতে ১ বিদেশী পিস্তল, ১টি ম্যাগাজিন ও ২ রাউন্ড পিস্তলের তাঁজা গুলি উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামী আব্দুর রশিদ ওরফে মিথুন এলাকার চিহ্নিত তালিকাভূক্ত দুর্ধর্ষ শীর্ষ সন্ত্রাসী এবং কুখ্যাত সন্ত্রাসী নিহত রকমত এর অন্যতম সহযোগী। তার আপন চাচা সন্ত্রাসী ফজল হক ক্রয়ফায়ারে নিহত হওয়ার পর সে তার চাচার অস্ত্র ভান্ডারের মালিক হয়। সে রকমত বাহনীর সদস্যদের গডফাদার এবং ইসরাফিল বাহিনীর প্রধান হয়ে এলাকায় নিজস্ব একটি সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তুলে এবং চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা, অস্ত্র ব্যবসা, জমি দখল, খুন, ধর্ষণ, ঝুট নিয়ন্ত্রন, ছিনতাই, ডাকাতি সহ নানা অপকর্ম শুরু করে।

অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আব্দুর রশিদ ওরফে মিথুনের বিরুদ্ধে হত্যা, মাদক, ডাকাতি, ছিনতাই সহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা মোকদ্দমা রয়েছে। মামলা হচ্ছে ফতুল্লা থানার মামলা নং-০৪ তাং ০২-০৮-২০০৪ ইং মামলা নং-১৪ তাং ০৫-০৮-২০১৫ ইং, মামলা নং-৪৫ তাং ১৪-০৮-২০১৫ ইং, মামলা নং-৪৭ তাং ১৬-০৭-২০১৩ ইং, মামলা নং-৭১ তাং ২৩-০৮-২০১৪ ইং।

র‌্যাব-১১ এর গোয়েন্দা দল তাদের গতিবিধি নজরদারীতে রেখে অস্ত্র-শস্ত্র ও মাদকদ্রব্য সহ অবস্থান নিশ্চিত হয়ে তাদেরকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। এ সংক্রান্তে আসামীদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা থানায় অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য আইনে দুইটি পৃথক মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আড়াইহাজারে স্ত্রীকে পিটিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে স্ত্রী সালমা বেগমকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ ঘরের বাইরে রেখে পালিয়ে গেছে স্বামী সোহেল মিয়া। সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার কান্দাপাড়া এলাকায় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, ১০বছর আগে উপজেলার বগাদী গ্রামের দরিদ্র আমানউল্লাহর মেয়ে সালমার সাথে কান্দাপাড়া এলাকার তারা মিয়ার ছেলে সোহেলের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই মাদকাসক্ত স্বামী সোহেল বিভিন্ন কারনে সালমার উপর নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। কোন কাজকর্ম করত না। এ নিয়ে স্থানীয় ভাবে বেশ কয়েকবার শালিস বসিয়ে স্বামী সোহেলের বিচার করে।

গত রাতে ২টার দিকে স্বামী সোহেল সালমার পিতাকে মোবাইল ফোনে বলেন, আপনার মেয়ে ঘরের বাইরে পরে আছে দেখে যান। নিত্য দিনের মতো ঘটনা মনে করে আমানউল্লাহ মেয়ের বাড়িতে যাননি। মঙ্গলবার সকালে প্রতিবেশীরা খবর দেয়, সালমার লাশ ঘরের বাইরে পড়ে আছে। খবর পেয়ে পুলিশ গৃহবধূ সালমার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করে। নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ও গলায় আঘাতের দাগ রয়েছে।

স্বামী সোহেল সহ তার পরিবারের সকলে পালিয়ে গেছে। তবে স্বামী সোহেলকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে পুলিশ জানায়।

Related posts