September 24, 2018

ফখরুল এখন ভালো মানুষ সাজার চেষ্টা করছেন – নাসিম


ঢাকাঃ ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার নিন্দা জানিয়ে বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুলের বক্তব্যকে দোষ ঢাকার অপচেষ্টা হিসেবে দেখছেন আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিম। বিকালে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার পর একে আওয়ামী লীগের পরিকল্পিত ঘটনা বলেছিল বিএনপি। জাতীয় সংসদে বিএনপির সংসদ সদস্যরা বলেছিলেন, জনগণের সহানুভূতি পেতে ভ্যানিটি ব্যাগে ভরে গ্রেনেড নিয়ে গিয়েছিলেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অভিযোগ করেছেন, ওই হামলার পর হামলাকারীদেরকে নিরাপদে সরে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে পুলিশ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর কাঁদানে গ্যাস ছুড়েছে। আহতদের চিকিৎসা পর্যন্ত করাতে চায়নি সরকারি হাসপাতালে বিএনপিপন্থি চিকিৎসকরা। আর এই মামলা ভিন্নখাতে নেয়ার চেষ্টাও করেছিল জোট সরকার।

তবে এক যুগ পূর্তির দিন গত রবিবার বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গ্রেনেড হামলাকে ইতিহাসের কলঙ্কজনক ঘটনা বলেছেন। ওই হামলায় নিহতদের প্রতি সমবেদনাও জানান তিনি।

এর প্রতিক্রিয়ায় ১৪ দলের মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘১২ বছর পর এসে তাদের ঘুম ভাঙলো? আসলে তারা এর সঙ্গে জড়িত। জনগণের দৃষ্টি সরাতেই এখন ভালো মানুষ সাজার চেষ্টা করছেন ফখরুল’।

নাসিম বলেন, কেবল ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা নয়, দেশে বহু সন্ত্রাস ও নাশকতায় বিএনপি জড়িত। বঙ্গবন্ধু হত্যায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ইন্ধন ছিল বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে পাকিস্তান হাতের কাছে পেয়েও তাকে হত্যার সাহস পায়নি। অথচ এদেশের কয়েকজন বিশ্বাসঘাতক তাকে হত্যা করেছে। আর এ হত্যার যেন বিচার না হয় সেজন্য খুনি মোশতাক ইমডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে। আর দীর্ঘদিন ধরে জিয়াউর রহমান, এইচ এম এরশাদ এবং খালেদা জিয়া এই কালো আইন ধারণ করেছেন।’

সাম্প্রতিক সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদে খালেদা জিয়া মদদ দিচ্ছেন অভিযোগ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘গুলশানে সন্ত্রাসী হামলা কঠোর হাতে দমনের ঘটনাকে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া রক্তাক্ত অভ্যুত্থান বলেছেন। এ থেকেই জাতির কাছে স্পষ্ট হয়ে গেছে তার অবস্থান কী?’

Related posts