December 10, 2018

প্রেমের টানে এক সন্তানের জননী উধাও, অতঃপর…

premer_tane

ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ, নওগাঁ  থেকে : প্রিয়ারে… প্রিয়ারে… কাঁদে হিয়ারে…। ভালসাবা কেন এত অসহায়… ! বুকে প্রেম, মনে আশা নিভে যায়। এই পথে আজই আছি এক সাথে । কাল যদি…মাঝ পথে… ভালবাসা নয় ত অপরাধ। প্রিয়ারে প্রিয়ারে… প্রিয়ারে…। নওগাঁর পতœীতলায় প্রেমের টানে এক সন্তানের জননী এক যুবকের হাত ধরে উধাও হলেছিলেন, কিন্তু; অবিভাবকদের তোপের মুখে অবশেষে দুটি আত্মা আবারো বিছিন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে। এতে প্রেমিকার অবিভাবকেরা কৌশলে মুঠোফেনে ডেকে নিয়ে প্রেমিকসহ তাঁর বাবা ও এক চাচাকে মারধর করে আহত করেছেন এবং এ প্রেম না মেনে নেয়াতে ভালবাসা বাস্তবে আর সংসার করা হলো না প্রেমিক নুরুন নবীর। এতে স্থানীয় গ্রাম্য শালিসে বিছিন্ন করা হয়েছে ও তালাক দেয়া হয়।

পারিবারিক ও স্থানীয় এলাকাবসাী সুত্রে প্রকাশ, গত মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে আপন স্বামীকে ঘুমিয়ে রেখে এক সন্তানের জননী একই গ্রামের একই পাড়ার প্রতিবেশি মো: সফি উদ্দীনের পুত্র মো: নুরুন নবী (৩৫) নামের যুবকের হাত ধরে নিরুদ্দেশ হয়েছেন। পরে রাতেই তাঁর স্বামী ঘুম হতে জাগ্রত হলে স্ত্রীকে পাশে না পেয়ে দেখেন বাড়ির মেইন দরজা খোলা। এতে তাঁর এক প্রকার সন্দেহ হলে পরিবার ও প্রতিবেশি জানা জানি হলে ভোরে ওই গ্রামের সবার মধ্যে চা ল্যকর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। ঘটনাটি ঘটে নওগাঁ জেলার পতœীতলা উপজেলার মাটিন্দর ইউনিয়নের শাশইল গ্রামের মধ্য পাড়ায়।

এতে মোবাইল ফোনসহ সামাজিক গণমাধ্যাম ফেসবুকে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়। ঘটনার পূর্ব অনুসন্ধানে জানা যায়, নুরুন নবী ওই গ্রামের একই পাড়ার প্রতিবেশি এক মেয়েকে প্রায় ১২বছর আগে প্রেমের ফাঁদে ফেলে উধাও হয়েছিলেন। পরে ওই মেয়ের পরিবার না মেনে নিলে মামলার পর কারা ভোগ করার পর উপজেলা সদর নজিপুরে ভাড়া বাসায় থেকে আর.এস টেইলার্সে দর্জি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। কিন্তু, প্রায় ১২ বছর সংসার ও এক মেয়ের বাবা হলেও তাদের দম্পত্য জীবনে নানা মুখি সন্দেহের এবং পরকীয়ার জেরে নুরুন নবীকে সাবেক স্ত্রী তাঁকে তালাক দেন ১বছর পূর্বে। আশ্চর্য হলেও সত্য, আবারো একই গ্রামের পূর্ব সম্পর্ক মামাতো বোন ও বর্তমান ভাই বৌ তথা ভাবিকে নিয়ে অজানা প্রেমের পথে নিরুদ্দেশ হয়েছিলেন। এতে এলাকায় এক চরম চা ল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন, স্থানীয় ইউপি সদস্য মো: হারুনুর রশিদ ও ইউপি সদস্যা মোসা: আক্তার বানু।
মাটিন্দর ইউপি চেয়ারম্যান মো: আব্দুল্লাহ্ আল ফারুক জানান, ঘটনাটি লোকের মুখে শুনেছি।

মো: ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ
পতœীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি

Related posts