September 23, 2018

প্রেমের কারণে ঝড়ে গেল যুবকের তাঁজা প্রাণ

আল-মামুন,
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধিঃ খাগড়াছড়ি জেলা সদরের কদমতলী এলাকায় সানী বড়ুয়ার আত্মহত্যার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারো প্রেমিকার প্রতারণার (প্রেমের ব্যর্থতা) কারণে “মো: কামাল হোসেন” নামের ২১ বছর বয়সী আরেক যুবকের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।

নিহতের মা পেয়ারা বেগম অভিযোগ করেন, খাগড়াছড়ির মাষ্টার পাড়ার বাসিন্দা গফুর মিস্ত্রীর মেয়ে কলেজ পড়ুয়া (প্রেমিকা) আয়েশা আক্তার দীর্ঘ আড়াই বছর পূর্বে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে।

আয়েশা বিভিন্ন সময় কামালের কাজ থেকে নগদ অর্থ, স্বণ,অলঙ্কারসহ দামি দামি গীফ্ট হাতিয়ে নিয়ে এখন প্রতারণা করার ফলে সে আত্মহত্যার পথ বেঁছে নিয়েছে।

আত্মহত্যার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হান্নান জানান, রাতে যুবকের আত্মহত্যার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পরে সকালে লাশ উদ্ধার করে। এ নিয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে বলে তিনি জানান।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত অনুমানিক সাড়ে টার দিকে বাড়ির লোকজনের অনুপস্থিতিতে প্রেমের ব্যর্থতার কারণে মো: কামাল হোসেন ভাড়া বাড়ীতে নিজ কক্ষে গলায় ফাঁস লাগিয়ে সে আত্মহত্যা করে।

নিহতের মা একটি হোটেলে কাজ শেষে ফিরে জানালা দিয়ে তার ছেলের ঝুলন্ত লাশ দেখে আহাজারী শুরু করে। এ ঘটনার এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহত যুবক কামাল হোসেন পেশায় একজন টমটম চালক। সে মৃত আহম্মদ সৈয়দের ছেলে।

তবে এ ঘটনায় এলাকাবাসী প্রেমিকা আয়েশা’কে “মো: কামাল হোসেন” এর আত্মহত্যার প্ররোচণার জন্য দায়ী করে তার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন।
পাহাড়ে ফলের চাষাবাদ করেও সাবলম্বী হয়ে উঠা সম্ভব

খাগড়াছড়িতে বন বিভাগ ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে আয়োজনে “কৃষি মেলা ও ফল প্রদর্শনি উপলক্ষে” র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টায় খাগড়াছড়ি পৌর টাউন হল থেকে বের র‌্যালীটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে টাউন হলে এসে ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিক উদ্ভোধন করে শান্তির প্রতিক সাদা পায়তা উড়ান উপস্থিত অতিথিরা।

জেলা প্রশাসন ও পার্বত্য জেলা পরিষদের সহযোগিতায় র‌্যালী ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, খাগড়াছড়ি ২৯৮ নং আসনের সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, এতে বিশেষ অথিতি ছিলেন-খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো: ওয়াহিদুজ্জামান,পুলিশ সুপার মো: মজিদ আলী (বিপিএম সেবা),বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো: মোমিনুর রশিদ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এর উপ-পরিচালক তরুণ ভট্টাচার্য্য। এতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমএম সালাহ্উদ্দিন,সহকারী পুলিশ সুপার মো: রইস উদ্দিন প্রমূখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেন, পাহাড়ে ফলের চাষাবাদ করেও সাম্ভলম্বী হয়ে উঠা সম্ভব। আমাদের নিজেদের বাড়ীর আঙ্গিনায় ফল-ফলাদীর চারা রোপন ও চাষাবাদ করে বেকার সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। তাই করো উপর নির্ভর না হয়ে নিজেরাই নিজেদের আয়ের পথ সুগম করতে সকলে মিলে-মিশে কাজ করার আহবান জানান।

এসময় তিনি বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের কথা তুলে ধরে দেশ-জনগণের কল্যাণে সকলকে ঐক্যবন্ধ হয়ে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান সৃষ্টির অনুরোধ জানান।

Related posts