November 16, 2018

প্রবাসে দেশের সুনাম অক্ষুন্ন রাখুন;মহান বিজয় দিবসে রাষ্ট্রদূত সরকার

Untitled-1

বাবু সাহা, লেবাননঃবৈরুত দূতাবাস যখন বিভিন্ন প্রবাসীবান্ধব পদক্ষেপের মাধ্যমে বাংলাদেশকে লেবানিজদের কাছে পরিচিত করে তুলতে নানা ধরনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, ঠিক তখনই গুটি কয়েক বাংলাদেশীর বিভিন্ন অপরাধে জড়িত হওয়ার কারণে দেশের সুনাম নষ্ট হচ্ছে।এর বিরূপ প্রভাব পড়ছে লেবাননে বসবাসরত সাধারন বৈধ প্রবাসীদের উপর।প্রবাসীরা এসব অপকর্ম বন্ধ না করলে এদেশে বাংলাদেশের শ্রমবাজার হুমকির সম্মুখীন হওয়ার প্রবল আশংকা রয়েছে।মহান বিজয় দিবসের আলোচনায় অংশ নিয়ে রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার প্রবাসে দেশের সুনাম অক্ষুন্ন রাখার আহব্বান জানান এবং প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটির সাহায্য ও সহযোগিতা কামনা করেন।আব্দুল মোতালেব সরকার বলেন , ‘মহান বিজয় দিবস জাতীয় জীবনে এক অনন্য গৌরবময় দিন। বিজয়ের এই মহান দিনে সেইসব অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গভীর শ্রদ্ধা জানাই; যারা দেশের স্বাধীনতা অর্জনে জীবন উৎসর্গ করেছেন। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সশ্রদ্ধ চিত্তে স্মরণ করেন।রাষ্ট্রদূত মহান বিজয় দিবসে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।

লেবাননে বাংলাদেশ দূতাবাসের হলরুমে ১৬ ডিসেম্বর শনিবার বিকাল ৩.০০ ঘটিকায় ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনায় জাঁকজমকপূর্ণ পরিবেশে  উদযাপন করা হলো বাংলাদেশের ৪৭-তম মহান বিজয় দিবস।মহান বিজয় দিবসের কর্মসূচীর মধ্যে ছিল আনুষ্ঠানিক ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, প্রামান্যচিত্র প্রদর্শন, বাণী পাঠ, দিবসের তাৎপর্যের উপর আলোচনা সভা ও আপ্যায়ন।

লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকারের সভাপতিত্বে এবং দূতাবাসের কাউন্সিলর সায়েম আহমেদ এর পরিচালনায় আলোচনা সভা শুরু হয়। সভার শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত পাঠ করেন সহ কনস্যুলার কর্মকর্তা আবুল হোসেন।পরে বাংলাদেশ এর স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মত্যাগকারী শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা সহ স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

এরপর রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহামুদ আলী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমের বাণী পাঠ করে শোনান দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ।পরে বিজয়ের তাৎপর্য ও শহীদদের স্মরণে দূতাবাসের হলরুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।এসময় লেবাননে অবস্থানরত  বিভিন্ন মিডিয়া, দূতাবাসের কর্মকর্তারা, স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ,  বাংলাদেশি কমিউনিটি সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটির উপস্থিতিতে  বাংলাদেশ দূতাবাসে  জাতীয় সংগীতের সুরে সুরে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন রাষ্ট্রদূত।

Related posts