September 24, 2018

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে হতাশ বগুড়াবাসী

Sheikh Hasina in Bogra

বগুড়ায় একটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিটি করপোরেশন, বগুড়া থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত রেললাইন ,একটি ফুটবল স্টেডিয়াম, একটি বালক এবং বালিকা বিদ্যালয় সরকারিকরণের দাবি থাকলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যে কোনো ঘোষণা না আসায় হতাশ হয়েছেন বগুড়াবাসী।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বগুড়া শহরের আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত জনসভায় প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মমতাজ উদ্দিন বগুড়াবাসীর পক্ষ থেকে দাবিগুলো নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা করেন।

এছাড়া কয়েকদিন আগে থেকেই বগুড়ার জনসভায় প্রধানমন্ত্রী চমক দেখাবেন বলে আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই বলছিলেন। শুধু তাই নয় এসব দাবি সম্বলিত ব্যানার ফেস্টুনে শহরে ঢেকে ফেলানো হয়েছিল।

আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠ ও তার আশেপাশে হাজার হাজার মানুষ অধীর আগ্রহে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনছিলেন। বিকেল ৩টা ৪২ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী ভাষণ শুরু করেন। প্রায় ৪৫ মিনিটের ভাষণে কখন বগুড়ার দাবিগুলোর ঘোসণা আসবে সেই অপেক্ষায় ছিলেন সবাই। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘ ভাষণে দাবিগুলোর কোনো সুস্পষ্ট ঘোষণা না আসায় অনেকেই হতাশা ব্যক্ত করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেছেন, ‘১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার বগুড়ায় একটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গেজেট প্রকাশ করেছিল। বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর তা বন্ধ করে দেয়।’

বক্তব্যে শেষে তিনি বেকার মানুষের কর্মসংস্থানের জন্য বগুড়ায় একটি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার পাশাপাশি একটি বিশ্ববিদ্যালয়, যমুনা সেতু থেকে রংপুর পর্যন্ত রেললাইন স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দেন। একইসঙ্গে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ, যমুনা নদীতে ড্রেজিংয়েরও প্রতিশ্রুতি দেন।

তবে বগুড়াবাসীর প্রাণের দাবি পৌরসভাকে সিটি করপোরেশন, একটি ফুটবল স্টেডিয়াম এবং প্রেসক্লাব ভবন নির্মাণের বিষয়ে কোনো কথাই বলেননি প্রধানমন্ত্রী।

উৎসঃ   বাংলামেইল

গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts