November 18, 2018

প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তি করায় রাবিতে ছাত্রমৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক আটক

ইমদাদুল হক সোহাগ
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ঃ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কটুক্তি করায় রোববার দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থগারের পিছন থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক দিলিপ রায়কে আটক করেছে মতিহার থানা পুলিশ। আটককৃত দিলিপ রায় বিশ্ববিদ্যালয় আর্থনীতি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী।

দিলিপ রায় রমপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের বিরোধীতা করে ফেসবুক ওয়ালে লেখেন, “প্রধানমন্ত্রী আপনার হারিকেন তৈরী আছে তো? দ্যাখেন আবার আপনার ভাগেরটাও চুরি হতে পারে, তখন আফসোস করে বলবেন (উনার বাপের ডায়লগটা)।’

একইভাবে তার কিছুক্ষণ পরে ওয়ালে লেখেন “আমি কুত্তার গায়েও লিখতে পারব না সে আওয়ামীলীগ, তাতে তার লজ্জা হবে।”

দিলিপের দেয়া এই স্ট্যাটাসের দেওয়ার পরেই বেলা ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের পিছন থেকে মতিহার থানা পুলিশের ওসি হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল তাকে আটক করে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির বলেন, ‘ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে দিলিপ স্ট্যাটাস দিয়েছে এবিষয়টি নিয়ে ছাত্রলীগ ক্ষিপ্ত হওয়ায় ক্যাম্পাসে কোন রকম ঝামেলা এড়াতে তাকে থানায় নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি দেখে তার বিরুদ্ধে পরবর্তীতে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর মজিবুল হক আজাদ খান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তি করায় তাকে আটক করা হয়েছে বলে শুনেছি।’

এদিকে এঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রগতিশীল ছাত্রজোট। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি কিংশুক কিঞ্জল বলেন, ‘পুলিশ তাকে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে স্ট্যাটাস দেয়ার কারন দেখিয়ে ৪৪ ও ৫৭ ধারায় কোন রকম গ্রেফতারী পরওয়ানা ছাড়াই গ্রেফতার করে। কিন্তু তার স্ট্যাটাসে তেমনকিছু লেখা হয়নি, যেটা ৫৭ ধারায় মধ্যে পড়ে।’

এ দিকে বেলা ১টার দিকে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি করায় তার শাস্তির দাবিতে ছাত্রলীগের সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রাঞ্জুর নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগের দলীয় টেন্ট থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। এ সময় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক খালিদ হাসান বিপ্লবসহ আন্যান্য নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন
রাবিতে ইতিহাস বিভাগের আলোচনা সভা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ইতিহাস বিভাগের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার বেলা ১১ টার দিকে বিভাগের ২০৩ নং রুমে এ সভার আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ইতিহাস বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মু. ময়েজুল ইসলাম। বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুনের পরিচালনায় প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখেন বিভাগের অধ্যাপক ড. চিত্তরঞ্জন মিশ্র। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবুর রহমান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ড. ফেরদৌসি খাতুন, ড. মো. শেরেজ্জামান, মোছা. সাহিনা আক্তার, মো. গোলাম সারওয়ার, মো. হেলাল উদ্দিন, হোসনে আরা খানম প্রমুখ।
আলোচনা সভায় বক্তারা বঙ্গবন্ধু, তার জীবনাদর্শ ও আত্মজিবনীর বইয়ের উপর বিশ্লেষান্ত¦ক বক্তৃতা উপস্থাপন করেন। সেই সাথে তার আদর্শ বাস্তবায়নের জন্য বাঙ্গালী হিসাবে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

রাবিতে ছাত্র ফেডারেশনের সংবাদ সম্মেলন

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হলের দাবিকে সমর্থন জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ছাত্র ফেডারেশনের নেতাকর্মীরা। শনিবার বেলা ১১ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়ার ২নং কেবিনে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি কিংশুক কিঞ্জল। পরিচালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক তমাশ্রী দাস। এসময় তিনি একটি লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহ সভাপতি নুরুল নাহিদ, কোষাধ্যক্ষ সুব্রত কর্মকার, দপ্তর সম্পাদক রাশেদ রিমন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সুমন মোড়ল প্রমুখ।

Related posts