November 25, 2017

প্রজন্ম সঞ্চয়ী হলে অর্থনীতিতে এগিয়ে যাবে দেশ-স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্সে আব্দুস সবুর মন্ডল

55
এ কে আজাদ, চাঁদপুর : স্কুল গামী ছাত্র-ছাত্রীদের সঞ্চয়ে উৎসাহিত করার লক্ষে স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্স উদ্ধোধন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বাংলাদেশ ইয়াং স্টার নামের একটি স্কিমের মাধ্যমে এই স্কুল ব্যাংকিং’ চালু করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই স্কিমটির মূল লক্ষ হচ্ছে, শৈশব থেকেই শিশুকে শিক্ষার পাঁশাপাশী সঞ্চয়ে উৎসাহীত করা।

(২৮ অক্টোবর) শনিবার সকালে চাঁদপুর স্টেডিয়ামে স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্স ২০১৭ র’ উদ্ধোধন করেন চাঁদপুর জেলা প্রশাসক আব্দুস সবুর মন্ডল। লিড ব্যাংক হিসেবে জেলার সোস্যাল ইসলামিক ব্যাংক লিঃ এর ব্যাবস্থাপনায় স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্স ২০১৭ উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইন্যালন্সিয়াল ইনক্লুশন ডিপার্টম্যান্টের মহা-ব্যাবস্থাপক মো. আবুল বশর। সোস্যাল ইসলামিক ব্যাংক লিমিটেডের অতিরিক্ত ব্যাবস্থাপনা পরিচালক এ এমএম ফরহাদের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ ওচমান গনি পাটওয়ারী, পৌর মেয়র আলহাজ¦ নাছির উদ্দিন আহমেদ, প্রেস ক্লাবের সাধারন সস্পাদক জি এম শাহিন, চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি শুভাষ চন্দ্র রায়, নারী মুক্তিযোদ্ধা ডা. সৈয়দা বদরুনন্নাহার চৌধুরী, সোস্যাল ইসলামিক ব্যাংক লিঃ এর ব্যাবস্থাপক মানিকুর রহমান মানিক।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকার স্কুল ও কলেজ পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীদের সঞ্চয়মুখী কারার প্রশংসনীয় উদ্যোগ নিয়েছে স্কুল ব্যাংকিংএর মাধ্যমে। আজকের এই ছোট-ছোট ছেলে মেয়েদের ক্ষুদ্র সঞ্চয়ের অর্থ একদিন রাষ্ট্রের জাতীয় অর্থনিতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে। শুধু তাইনয় ছাত্র-ছাত্রীদের সুশৃঙ্খল জীবন ঘঠনে সহায়ক শক্তি হিসাবে কাজ করবে।

তিনি আরো বলেন, আগামী প্রজন্ম সঞ্চয়ী হলে দেশ অর্থনীতিতে দ্রুত এগিয়ে যাবে। সকল শিশুই সপ্নদেখে আর এইসপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে আর্থিক সচ্চলতা প্রয়োজন। আজকের এই শিশুদের মাঝে আর্থিক সচ্চলতা আসলে আমাদের দেশ আর পিছনের দিকে তাকাতে হবে না। আমাদের মনে রাখতে হবে শিশুর অর্থনৈতিক সচ্ছলতা থাকলে অভিবাবকের উপর নির্ভরতা কমে আসবে।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, বর্তমান সরকার ২০৪১ সালে বাংলাদেশকে তোমাদের হাত ধরে উন্নত রাষ্ট্রে নিয়ে যেতে চাচ্ছে। কারন ওই সময়টিতে দেশ পরিচালনার দ্বায়ীত্বে থাকবে তোমরাই। আগামী ৬ মাসের মধ্যে চাঁদপুরের ১লাখ স্কুল পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুল ব্যাংকিংএর আওতায় নিয়ে আসা হবে। ব্র্যাডিং জেলা চাঁদপুরকে স্কুল ব্যাংকিংএ দেশের প্রথম স্থানে নিয়ে আসা হবে।

উল্যেখ্য : ৬ বছর থেকে শুরু করে ১৮ বছর বয়সের ছাত্র-ছাত্রীরা সর্বনিন্ম ৫০ টাকার বিনিময়ে যে কোন ব্যাংকে তাদের নামে একাউন্ট খুলতে পারবে। স্কুল গামী ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের নামে খোলা একাউন্টে তার জমানো টাকা যে পরিমানের হউকনা কেন সে জমা দিতে পারবে।

তবে জমাকৃত টাকা শুধু মাত্র একাউন্টের নমিনী অভিবাবকই উত্তলন করতে পারবেন এছাড়া অন্য কেউ এই টাকা উত্তলন করতে পারবেন না। একাউন্টের মেয়াদ ১৮ বছর পূর্ণ হয়ে গেলে এই অর্থের মালিক হবেন যার নামের একাউন্ট সে নিজেই।

স্কুল ব্যাংকিং একাউন্ট থেকে ব্যাংক কতৃপক্ষ কোন প্রকার সার্ভিসসার্জ কেটে নিবেনা। এবং একাউন্টে জমানো অর্থের উপর বছর শেষে আড়াই থেকে তিন পার্সেন্ট প্রফিট দিবে ব্যাংক কতৃপক্ষ।

লিড ব্যাংক জেলার সোস্যাল ইসলামিক ব্যাংক লিঃ এর ব্যাবস্থাপনায় স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্সে জেলার মোট ২৮টি ব্যাংক অংশগ্রহন করেছে। প্রতিটি ব্যাংকের আলাদা-আলাদা স্টল রয়েছে। এছাড়া এই কনফারেন্সে জেলার ২৮ টি উচ্ছ-বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রন করেছেন।

অনুষ্ঠানে ৩জন কৃতি সন্তানকে সস্মানা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। শেষে আগত স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে কুইজ, চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত হয়।

Related posts