November 18, 2018

প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত আ’লীগ, দেখা নেই বিএনপির!

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধিঃ  মানিকছড়ি উপজেলার ৪ ইউপিতে নির্বাচনকে ঘিরে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন আওয়ামীলীগ প্রার্থীরা। মানিকছড়ি ১নং সদর ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামীলীগের মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মো: শফিকুল ইসলাম ফারুকের ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা দেখা যায়। উপজেলার গচ্ছাবিল,মানিকছড়ি সদর সহ বিভিন্ন এলাকায় এ চেয়ারম্যান প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে-শনিবার সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে সারা দিন প্রচার-প্রচারণার সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে কোথাও খোঁজ মিলেনী বিএনপি প্রার্থীদের প্রচারণার। তবে কি বাঁধা না নীরব হুমকির মূখে নিশতেজ হয়ে আছে বিএনপির প্রার্থীরা। এমন প্রশ্ন এখন সর্বত্রই শুনা যাচ্ছে। তবে আওয়ামীলীগের তরফ থেকে বিএনপির প্রার্থীদের কোন ধরণের বাঁধা না দেওয়ার কথা জানানো হলেও মানিকছড়িতে তার চিত্র ভিন্ন।

এ ইউপিতে জয়ের লক্ষ নিয়ে প্রতিপক্ষ প্রার্থীকে পরাজিত করতে কোমড় বেঁধে মাঠে নেমেছেন আওয়ামীলীগ প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা। ১নং মানকছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের প্রার্থী শফিকুল ইসলাম ফারুক দলের নিবেদিত ও দু-সময়ের বঙ্গবন্ধুর পরিক্ষিত সৈনিক দাবী করে স্থানীয় দলের নেতাকর্মীরা জানান, দলের মনোনিত প্রার্থীদের জয়ের জন্য সকলেই সম্মিলিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। আওয়ামীলীগের প্রার্থীদের জয় সু-নিশ্চিত।

এছাড়াও অন্যান্য ৪ ইউনিয়ন পরিষদে সারা প্রার্থী হয়েছে তারা হচ্ছে- নৌকা প্রতীক নিয়ে বাটনাতলীতে শহীদুল ইসলাম মোহন,তিনট্যহরীতে রফিকুল ইসলাম বাবুল,যোগ্যাছোলাই ক্যাওজাই মারমা।

আওয়ামীলীগ প্রার্থী

অন্যদিকে ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে বিএনপির প্রার্থীরা হচ্ছে- মানিকছড়ি ১নং ইউপিতে মো: আবুল কাশেম, বাটনাতলীতে আবদুল কাদের, যোগ্যাছোলাই মো: জামাল উদ্দিন, তিনট্যহরীতে জাকির হোসেন সিরাজ প্রার্থীতা অনিশ্চিত হওয়ার কারণে কোন প্রার্থী না থাকার ফলে একক প্রার্থী হিসেবে আওয়ামীলীগ প্রার্থী রফিকুল ইসলাম বাবুল বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় জয় লাভের পথে রয়েছে।

এদিকে তিনট্যহরীতে বিএনপির মনোনিত প্রার্থী জাকির হোসেন সিরাজ অভিযোগ করে বলেন, মানিকছড়ি উপজেলা নির্বাচন অফিসের সহযোগিতায় কৌশলে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর লোকজনেরা র্টেজারী চালানের মেইন কপি সরিয়ে ফেলায় ২৯ মার্চ যাচাই-বাছাই পর্বে তাকে অযোগ্য ঘোষনা করা হয়।

পরে র্টেজারী চালানের ফটোকপি অফিসের পাওয়া যায়। এর পর ৩০ ই মার্চ সার্টিফাইট কপি আনতে গেলেও সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের হামলার শিকার হওয়ায় অবরুদ্ধ থাকায় আপিল করা সম্ভব হয়নী জানিয়ে তিনি বলেন, পতিপক্ষ প্রার্থীর লোকজন তার বসত বাড়ীতে হামলা চালানোর ফলে তার প্রার্থীরা অনিশ্চিত হয়ে পড়ে বলে জানান।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/১৬ এপ্রিল ২০১৬/রিপন ডেরি

Related posts