November 20, 2018

প্যারিস হামলা ও একজন মুসলিম ট্যাক্সিচালক…

প্যারিস হামলা ও একজন মুসলিম ট্যাক্সিচালক

নিউ ইয়র্ক। প্যারিস থেকে ৫৮৩৪ কিলোমিটার দূরত্ব। সেই নিউ ইয়র্কের এক মুসলিম ট্যাক্সিচালকের হৃদয় কাঁদছে প্যারিসের হত্যাযজ্ঞে। ওই ট্যাক্সিচালকের নাম প্রকাশ করা হয় নি। শনিবার তিনি গাড়ি নিয়ে বের হয়েছিলেন রাস্তায়। আতঙ্কে কেউ ট্যাক্সিতে উঠতে সাহস পাচ্ছিলেন না। তাই দুই ঘণ্টা তাকে গাড়ি নিয়ে পথে পথে ঘুরতে হয়েছে যাত্রীর আশায়। অকস্মাৎ তার গাড়িতে উঠে পড়েন নিউ ইয়র্কের অ্যালেক্স

ম্যালোয়। গাড়িতে উঠেই তিনি চালকের সঙ্গে কথোপকথন শুরু করেন। প্রথম কথায়ই ওই চালক বলেন, আপনাকে ধন্যবাদ। কারণ দু’ঘণ্টা আমি কোন যাত্রী পাই নি। আতঙ্কে নিউ ইয়র্কের কেউ ট্যাক্সিতে উঠছেন না। তিনি প্যারিস প্রসঙ্গ আসতেই বললেন, ওটা হৃদয়ভাঙা একটি মুহূর্ত। সবচেয়ে বেদনাময় মুহূর্ত সেটি। একজন মুসলিম গাড়িচালকের এমন ভাষ্যে অভিভূত হন অ্যালেক্স ম্যালয়। তাদের নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে দ্য সান পত্রিকায়। এতে বলা হয়েছে, ওই ট্যাক্সিচালকের বয়স ২৩ বছর। অ্যালেক্সের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি কেঁদে ফেলেন। অ্যালেক্স বলেন, আমার অ্যাপার্টমেন্ট পর্যন্ত ওই ট্যাক্সিচালক পৌঁছে দিলেন।

সারাটা পথ তিনি কেঁদেছেন। তার কান্না দেখে আমিও কেঁদেছি। ওই চালক প্যারিস হামলার প্রসঙ্গ টেনে বললেন, আমার সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ এমন সব কর্মকাণ্ডের সঙ্গে নেই। কেউ হয়তো ভাবতে পারে আমি মুসলিম, আমিও হামলাকারীদের মতো মানসিকতার। কিন্তু না। আমি তা নই। তার প্রসঙ্গে অ্যালেক্স ম্যালয় বলেন, আমার সারা জীবনে যে অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেছি তার মধ্যে তার এই ব্যবহার আমার হৃদয়ে ঠাঁই করে নিয়েছে। তিনি অসম্ভব একজন ভাল মানুষ। তিনি আমার বয়সী। তার বয়স ২৫ বছরের বেশি হবে না। আমি বিশ্বাস করতে পারছি না এমন একজন মানুষের মুখের কথা আমি শুনতে পেয়েছি।

উৎসঃ   মা.জ.
গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts