September 23, 2018

পুষিয়ে’ দিতেই বাংলাদেশে আসবে অস্ট্রেলিয়া!

স্পোর্টস ডেস্ক:  চলতি বছরে বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলার কথা ছিলো অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের। কিন্তু নিরাপত্তার অজুহাতে শেষ মূহুর্তে ঢাকা সফর ত্যাগ করে তারা।পুষিয়ে দিতেই আসছে অস্ট্রেলিয়া, সেক্ষেত্রে বঞ্চিত হবে বাংলাদেশই। ফিউচার ট্যুরস প্রোগ্রাম(এফটিপি) অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়াতে বাংলাদেশের সফর করার কথা রয়েছে আগামী ২০১৭ সালে। অন্যদিকে, চলতি বছরের সফর বাতিল হওয়ার পর তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয় ২০১৬ সালে ‘না হওয়া’ টেস্ট সিরিজটি খেলতে বাংলাদেশে আসবে স্টিভেন স্মিথের দল। কিন্তু মাসখানেকের মধ্যে নতুন প্রস্তাব পাঠালো অস্ট্রেলিয়া। ২০১৬ তে নয়, ২০১৭ তে ঠিক যে সময় দেশের সফর করার কথা বাংলাদেশের তখন উল্টো বাংলাদেশ সফর করতে চায় তারা। সেক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়া সফর থেকে বঞ্চিত হবে বাংলাদেশ দল। সেক্ষেত্রে অবশ্য মেনে নেওয়া ছাড়া কিছু করার থাকবে না বাংলাদেশের। কারণ, অস্ট্রেলিয়া বানিজ্যিক ক্ষতি এড়াতেই তাদের দেশে বাংলাদেশ সফরকে আটকে দেওয়ার চেষ্টা করছে।

সেক্ষেত্রে দুটি ব্যাপার হবে। প্রথমত, অস্ট্রেলিয়া বেঁচে যাবে বানিজ্যিক ক্ষতির দিক থেকে, অন্যদিকে সফর বাতিল হলেও অস্ট্রেলিয়া আসায় লাভবান হবে বাংলাদেশ আর আগের সফর বাতিল করার ব্যাপারে দায়মুক্তি পাবে অস্ট্রেলিয়া। এদিকে, এ প্রসঙ্গে দেশের শীর্ষ একটি দৈনিককে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এর ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির প্রধান নাঈমুর রহমানের দূর্জয় বলেন, ‘বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত করিনি আমরা। অচিরেই অপারেশনসের সভা আছে। সেখানেই সিদ্ধান্ত হবে। আসলে ওরা তো প্রস্তাব আমাদের ওপর চাপিয়ে দেয়, আমাদের তা মেনেও নিতে হয়।’ ২০০৩ সালের পর অস্ট্রেলিয়াতে টেস্ট খেলা হয়নি বাংলাদেশের। আশাটা তাই ছিলো অনেক বড়। কিন্তু এরই মধ্যে এই প্রস্তাব অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে। তবে নিরাশ হতে চান না বাংলাদেশ দলের সাবেক এই অধিনায়ক। বললেন, ‘নিশ্চয়ই অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট খেলতে যাবে বাংলাদেশ।

সেটি কোন সময়ে, তা আমরা আলোচনায় বসেই ঠিক করব। অবশ্য একই বছর দুটি সিরিজ হওয়া সম্ভব নয়। হয়তো পরের বছরই যেতে পারি আমরা।’ অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ার নতুন এই প্রস্তাবে লাভবান হবে বাংলাদেশই। কারণ, বানিজ্যিক প্রসঙ্গ। সেটা টের পাওয়া গেলো বিসিবির এই কর্মকর্তার কথাতেই, ‘এটা ঠিক যে অস্ট্রেলিয়ার আসাটা বাণিজ্যিক দিক থেকে বিসিবির জন্য লাভজনক হবে। তাই কোনো কিছু এখনো চূড়ান্ত না হলেও বোর্ডের মনোভাব ইতিবাচক।’

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts