November 15, 2018

পুলিশ কন্সটেবলের কিল ঘুষিতে নাজেহাল সহকারি নায়েব!

জাহিদুর রহমান তারিক
ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃ  ঝিনাইদহের বাজার গোপালপুর পুলিশ ক্যাম্পের কন্সটেবল আপন হোসেনের কিল ঘুষিতে অপমান অপদস্ত হয়েছেন ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক দপ্তরের সহকারি নায়েব শফি উদ্দিন। শনিবার বিকালে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাজারগোপালপুরে প্রকাশ্যে শতশত মানুষের মধ্যে শফিউদ্দীনকে অকথ্য ভাষায় গালগালাজ এবং কিল-ঘুষি মেরে লাঞ্ছিত করে। এ ঘটনায় বাজারে জনরোষ সৃষ্টি হলে পুলিশ কনস্টেবল ক্ষমা চেয়ে রক্ষা পান।

প্রত্যক্ষ্যদর্শীরা জানান, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার দূর্গাপুর গ্রামের আব্দুল মোমিনের ছেলে শফি উদ্দিন শনিবার বিকাল ৫টার দিকে বাজারের যাত্রীছাউনির নিকট মোটরসাইকেল দূর্ঘটনায় দু’জন আহত হলে উপস্থিত লোকজনের কারনে রাস্তায় যানজটের সৃষ্টি হয়।

ওই সময় বাজার গোপালপুর ক্যাম্প পুলিশের কন্সটেবল আপন হোসেন রাস্তা দিয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় যানজটে পড়ে বিরক্তি প্রকাশ করেন। বিষয়টি নিয়ে শফিউদ্দীনের সাথে তর্ক বিতর্ক হওয়ার এক পর্যায়ে তাকে অকথ্য ভাষায় গালগালাজ করতে থাকেন। শফি উদ্দিন তাকে মুখের ভাষা ও ব্যবহার সংযত করতে বলেন। কন্সটেবল আপন হোসেন এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে মোটরসাইকেল রাস্তার উপর রেখে তাকে কিল-ঘুষি মারতে থাকেন।

এ সময় জনগন উত্তেজিত হয়ে উঠলে তিনি দ্রুত বাজারগোপালপুর ক্যাম্পের ভিতর চলে যান। কিছুক্ষন পর ক্যাম্পের এএসআই উত্তম কুমার শফি উদ্দিনকে গ্রেফতারের চেষ্টা করলে জনগন আবারো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে।

এএসআই উত্তম কুমার প্রকৃত ঘটনা বুঝতে পেরে তিনিও তার ব্যবহারের জন্য দু:খ প্রকাশ করেন। এদিকে শফি উদ্দিন বিষয়টি জেলা প্রশাসনকে জানালে চলতে থাকে পুলিশের দেনদরবার। অবশেষে শনিবার রাত ৮টার সময় বাজারগোপালপুরের চিকিৎসক অলিয়ার রহমানের দোকানের সামনে ক্যাম্পের এএসআই উত্তম কুমারের উপস্থিত লোকজনের সামনে কন্সটেবল আপন হোসেন তার নিজের দোষ স্বীকার করে ক্ষমা চাইলে বিরোধের নিস্পত্তি হয়।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসান হাফিজুর রহমান বলেন, এ ঘটনাটি কেউ আমাকে অবগত করেনি। পুলিশের পক্ষ থেকেও জানানো হয়নি। তবে খোঁজ খবর নিয়ে আমি দেখছি।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/১৫ মে ২০১৬

Related posts