November 16, 2018

পুলিশের বিরুদ্ধে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ

12

 

সোনারগাঁ উপজেলার ঢাকা-বাইপাস সড়কে সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালককে মারধর ও গাড়ি ভাঙচুর করায় বিক্ষোভ করেছে চালক ও এলাকাবাসী। এসময় বিক্ষোভকারীরা মহাসড়ক অবরোধ করে মিছিলও করে।

শনিবার দুপুরে উপজেলার মীরেরটেক এলাকায় এ বিক্ষোভ করা হয়। মহাসড়ক অবরোধকালে দু’পাশে শতশত যানবাহন আটকা পড়ে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়ে যাত্রীরা।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। আহত চালকের নাম বাবুল মিয়া। তিনি কলতাপারা গ্রামের জমির আলীর ছেলে।

এলাকাবাসী ও চালকরা জানান, দুপুরে ঢাকা-বাইপাস সড়কের মীরেরটেক এলাকা দিয়ে বাবুল মিয়া অটোরিকশা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এসময় কাচঁপুর হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট মাহাবুব হোসেন বাবুল মিয়াকে মারধর করেন ও তার অটোরিকশায় ভাঙচুর চালান।

পরে ওই এলাকার চালক ও এলাকাবাসী এক হয়ে হাইওয়ে পুলিশের গাড়ি আটকে রেখে এক ঘণ্টা ধরে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করে। এতে এলাকায় শতশত যানবাহন আটকা পড়ে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ সৃষ্টি হয়।

কাচঁপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ঘটনাস্থলে গিয়ে বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

বিক্ষোভকারী চালকরা অভিযোগ করেন, ঢাকা বাইপাস সড়কের বস্তল ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা সেতুর আষাড়ীয়ার চর এলাকায় হাইওয়ে পুলিশ বিভিন্ন পরিবহনে অভিযান ও তল্লাশির নামে প্রতিদিন মোটা অংকের চাঁদা আদায় করে থাকে। চাঁদা না দিলেই এভাবে নির্যাতন চলে।

আহত চালক বাবুল মিয়া বলেন, ‘আমি গাড়ি নিয়ে যাওয়ার সময় বিনা কারণে হাইওয়ে পুলিশ আমাকে পিটিয়ে আহত ও গাড়ির ভাঙচুর করে।

কাচঁপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ শরিফুল আলম জানান, মহাসড়কে সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলাচল নিধিদ্ধ থাকার পরেও বাবুল মিয়া জোর করে গাড়ি চালাচ্ছিল। সার্জেন্ট মাহাবুব চালকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ায় এলাকাবাসী ও চালকদের সাথে পুলিশের ভুল বোঝাবুঝি হয়।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts