November 19, 2018

পার্বতীপুরে হত্যা মামলার প্রধান দুই আসামী আটক

মোঃ মেহেদী হাসান উজ্জল,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ   চুরির টাকা ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে বিরোধের জের ধরে পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি এলাকার জাকিরুল ইসলাম জাকু(৩৫) এক চোরকে বৈদুতিক শর্ট দিয়ে মর্মান্তিক ভাবে হত্যা করেছে অপর চোরেরা। হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আবু মোতালের ভেকু(৫০) ও আসাদুল হক ফেকু (৩৫) নামে দুই চোরকে আটক করেছে পুলিশ । ভেকু বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি সংলগ্ন উত্তর চৌহাটি গ্রামের মৃত তমিজ উদ্দিনের ছেলে এবং ফেকু একই গ্রামের শামসুল হকের ছেলে। গত সোমবার দুপুরে বড়পুকুরিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ হত্যাকান্ডের স্থান থেকে হত্যায় ব্যবহৃত বৈদুতিক তারসহ দুজনকে আটক করে। উল্লেখ্য গত ৩রা জানুয়ারী উপজেলা হাবড়া ইউনিয়নের পুর্ব শেরপুর বর্নমালা স্কুল এন্ড কলেজের পার্শ্বের জমিতে অবস্থিত একটি বৈদ্যুতিক খুটির নিকট থেকে জাকুর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ ।

জাকু উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের আনন্দবাজার এলাকার মৃত সাইরুদ্দিন এর ছেলে। ১৫ বছর আগে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি সংলগ্ন উত্তর চৌহাটি গ্রামে বিয়ে করে । বিয়ের পর থেকে সে শ্বশুরবাড়ীতেই বসবাস করে আসছিল। পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল আলম ও মামলা তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক এস আই ফেরদৌস জানান কিছুদিন আগে জাকু, ভেকুসহ ৬/৭ জন মিলে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র হইতে তার চুরি করে। সেই তার জাকুকে বিক্রি করার দায়িত্ব দেয়। জাকু বেশি দামে বিক্রি করে কম দামের কথা বলে অন্যদের ৪হাজার টাকা করে ভাগ দেন। পরে ভেকু, ফেকুসহ অন্যান্যরা বেশি দামের কথা জানতে পেরে জাকুকে হত্যার পরিকল্পনা  করে।

সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ২রা জানুয়ারী রাত সাড়ে ৮টার দিকে ভেকু, ফেকুসহ অন্যান্যরা চুরি করতে যাওয়ার কথা বলে জাকুকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে বর্নমালা স্কুল এন্ড কলেজের পার্শ্বের জমিতে নিয়ে যায়। সেখানে ভেকু ও ফেকু ৩৩ কেভি একটি বৈদ্যুতিক খুটির সাথে জাকুকে বেধে বৈদ্যূতিক শর্ট দিয়ে হত্যা করে জমিতে ফেলে রেখে যায়। গ্রেফতারকৃত ভেকু ও ফেকুকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ এসব তথ্য জানতে পারে বলে তারা জানান। এ ব্যাপারে নিহত জাকুর স্ত্রী সানোয়ারা বেগম শানু বাদী হয়ে ভেকু ও ফেকুসহ অজ্ঞাতনামা আরো ও ৩/৪ জনের নামে পার্বতীপুর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন যাহার মামলা

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts