September 26, 2018

পারফিউম ব্যবহারে সতর্কতা

ad7d0_০৬_long

ঢাকা: বেড়েই চলেছে গরমের তীব্রতা। রাস্তায়, অফিসে সব জায়গায় ঘেমে অস্থির হয়ে উঠছে সবাই। অস্বস্তিকর গরমে পারফিউমের সৌরভই পারে আপনার আশপাশের পরিবেশকে সুন্দর করে তুলতে। তাই গরমে কেমন পারফিউম ব্যবহার করবেন, তা কিন্তু জানার প্রয়োজন আছে।

অফিস কিংবা প্রিয়জনের সঙ্গে ঘুরতে যাওয়ার সময় পরিপাটি সাজগোজের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশই হলো পারফিউম বা সুগন্ধি। পারফিউম শরীরে মাখার একটাই কারণ, যাতে আপনার দেহ থেকে সুগন্ধ বেড়িয়ে আসে। সুগন্ধি ব্যবহার করার নির্দিষ্ট কিছু জায়গা আছে, সেসব জায়গায় সুগন্ধি ব্যবহার করলে অনেকক্ষণ ধরে প্রিয় গন্ধ ঘিরে রাখবে আপনাকে।

কিছু কিছু পারফিউম নির্দিষ্টভাবে ব্যবহার করা হয় রাত ও দিনের জন্য। দিনের বেলায় তুলনামূলক ভারী সুগন্ধিগুলো ব্যবহারের পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। রাতের বেলায় হালকা। কারণ, দিনের বেলায় অনেকটা সময় ধরে সুগন্ধির প্রয়োজন।

কী ভাবছেন? তাহলে কি আর সুগন্ধি ব্যবহারই করা যাবে না? অবশ্যই করবেন। এক্ষেত্রে গবেষকরা বলেন, ব্যবহারের আগে সুগন্ধির প্রকৃতি আর লেবেলের দিকে ভালোমতন নজর দিয়ে তবেই সেটা ব্যবহার করুন। তা না হলে স্বাস্থ্যের ক্ষতি এড়াতে পারবেন না। তবে পারফিউমের এই নিয়মিত ব্যবহার কিন্তু আমাদের জন্য বিপদ ডেকে আনে। সম্প্রতি এমনটিই বলছেন গবেষকরা।

গবেষকদের মতে, লিপ গ্লস থেকে শুরু করে, ডিটারজেন্ট, পারফিউমসহ আরো বেশ কিছু দ্রব্য স্টাইরিন উৎপন্ন করে। এমনিতে হয় তো আলাদা আলাদাভাবে এরা খুব বেশি শক্তিশালী নয়। তবে একবার যদি এরা অনেকে একসঙ্গে মিলিত হয় তাহলে ঠিক কতটা বেশি শক্তিশালী হয়ে পড়তে পারে সেটা সহজেই অনুমেয়।

কীভাবে ব্যবহার করবেন : কিছু পারফিউম আছে যা শরীরে মাখার কিছুক্ষণের মধ্যেই এর গন্ধ উড়ে যায়। এক্ষেত্রে সকলেই দোষ দেন পারফিউমকেই। অনেকেই আবার মনে করেন, দামি পারফিউম হলেই বোধ হয় ঘ্রাণ বেশিক্ষণ থাকে। আসলে এই কথার কোনো ভিত্তি নেই। দামি পারফিউমের সঙ্গে দেহে সুগন্ধ ধরে রাখার তেমন কোনো সম্পর্ক নেই। আসলে শরীরে গন্ধ টিকিয়ে রাখা সম্পূর্ণ নির্ভর করে আপনি কীভাবে পারফিউম ব্যবহার করলেন তার ওপর। একটু কৌশল করে পারফিউম ব্যবহারে দেখবেন, দীর্ঘক্ষণ সুগন্ধে ঘিরে থাকবেন আপনিও।

পারফিউমের উপকরণ : পারফিউমের সুঘ্রাণ অনেকাংশে ধরে রাখে পারফিউমে ব্যবহৃত বিশেষ ধরনের তেল। এক্ষেত্রে পারফিউম এক্সপার্টরা জানান, নিজের পছন্দের পারফিউমের বোতলটি হাতে নিয়ে দেখুন। যদি এর উপকরণে তেলের মাত্রা বেশি থেকে থাকে তাহলে মাত্র ২/১ স্প্রেতেই আপনার দেহে সুগন্ধ থাকবে সারাদিন। আর যদি পারফিউমে পানি ও অ্যালকোহলের মাত্রা বেশি থাকে তাহলে কিছুক্ষণ পরই এর সুঘ্রাণ উবে যাবে।

চেনার উপায় : পারফিউমের গায়ে ‘eau de parfum’ লেখা দেখে কিনুন এবং ‘eau de toilette’ লেখা পারফিউম এড়িয়ে চলুন।

চুলে ও কাপড়ে ব্যবহার: পারফিউমের সুঘ্রাণ অনেকটা সময় আপনার দেহে থাকবে যদি আপনি পারফিউম সঠিকভাবে ব্যবহার করেন। চুল ও কাপড়ে পারফিউম ব্যবহার করলে অনেকটা সময় পারফিউমের সুঘ্রাণ ধরে রাখতে পারবেন। ত্বকে পারফিউম স্প্রে করলে তা কিছুক্ষণ পরেই উবে যাবে।

পারফিউম ঠাণ্ডা ও অন্ধকার স্থানে রাখুন : পারফিউম কেমিক্যাল দ্বারা তৈরি। সুতরাং এটি খুবই স্বাভাবিক যে, পারফিউম আলো ও তাপে অক্সিডাইজ হয়ে যেতে পারে। অক্সিডাইজ হয়ে যাওয়া পারফিউমের ঘ্রাণ নষ্ট হয়ে যায় এবং তা দেহে বেশিক্ষণ থাকেও না। তাই যদি অনেকটা সময় দেহে পছন্দের পারফিউমের সুঘ্রাণ ধরে রাখতে চান তাহলে পারফিউমের বোতল রাখুন ঠাণ্ডা ও অন্ধকার স্থানে।

বেশ কিছু সুগন্ধিকে নিয়ে পরীক্ষা চালানোর পর গবেষকরা বলেন, বেশিরভাগ নামী-দামী সুগন্ধির উপাদানের তালিকাতেই এর ভেতরে ব্যবহৃত ক্ষতিকারক উপাদানগুলোর নাম থাকে না। ফলে সেগুলো সম্পর্কে জানতে পারে না ব্যবহারকারীরা। এতে করে খুব অল্প পরিমাণে হলেও ধীরে ধীরে শুক্রাণু নষ্ট হওয়া, হরমোনের সমস্যা হওয়া থেকে শুরু হয়ে সৃষ্টি হয় ক্যান্সার নামক মারাত্মক ব্যাধি!

Related posts