September 24, 2018

পারফরম্যান্সের মতো তাক লাগাবে গেইলের প্রাসাদও!

স্পোর্টস ডেস্কঃ বিরাট কোহলিদের পেছনে ধাওয়া করে অ্যান্টিগা থেকে এখন এসে পৌঁছেছি জামাইকায়৷ জেসন হোল্ডারদের বিরুদ্ধে তো সাবাইনা পার্কেই দ্বিতীয় টেস্ট৷ তাই আগামী পাঁচদিন কাটবে এই শহরেই৷ তবে এমন সময়ে জামাইকায় এলাম, যখন দুই জামাইকান ‘চাম্পিয়ন’ই দেশের বাইরে রয়েছেন৷ নিশ্চয়ই আন্দাজ করতে পারছেন কাদের কথা বলছি? হ্যাঁ, ক্রিস গেইল এবং অবশ্যই উসেইন বোল্ট৷ গেইল আপাতত মার্কিন মুলুকে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে ব্যস্ত৷ আর নতুন রেকর্ড গড়ার লক্ষ্যে রিও পাড়ি দিয়েছেন থান্ডার বোল্ট৷ সুতরাং তাঁদের সঙ্গে তাঁদের ডেরায় গিয়ে দেখা করার ইচ্ছেটা এবারের মতো দমন করতে হল৷ কিন্তু এত কাছে এসেও একবার গেইলের বাড়িতে ঢুঁ না মারলে, সফরটাই যেন অসম্পূর্ণ থেকে যায়৷ যেমন ভাবনা, তেমন কাজ৷ ডেস্টিনেশন রেড হিল৷

আইপিএল-এর সৌজন্যে গেইল এখন ভারতের ঘরের ছেলে হয়ে উঠেছেন৷ মাঠের ভিতরের মতো মাঠের বাইরেও তিনি সমান জনপ্রিয়৷ সোশ্যাল মিডিয়াতেও দারুণ অ্যাকটিভ ক্যারিবিয়ান জায়ান্ট৷ তাঁর চর্চা বিশ্বজোড়া৷ আর এই সবকিছুই তাঁকে বানিয়ে তুলেছে ‘দা বস’৷ মানে কিংস্টনে অনেকেই তাঁকে এই নামেই ডাকেন৷ নিজের জীবনযাপন নিয়ে কখনোই তেমন রাগ-ঢাক করেননি তিনি৷ স্ট্রিপ ক্লাবের ছবিও যেমন টুইটারে পোস্ট করেছেন, তেমন বান্ধবীদের সঙ্গে সুইমিং পুলেও সময় কাটাতে দেখা গিয়েছে তাঁকে৷ এক্কেবারে রাজার হালে থাকেন তিনি৷

গেইলের নিজস্ব সেই সাজানো দুনিয়া দেখার লোভ সামলাতে পারলাম না৷ গাড়ি নিয়ে সোজা চান্সেরি হল-এ পৌঁছালাম৷ মজার ব্যাপার কি জানেন? আমার গাড়ির চালকের ডাক নামও গেইল৷ জনপ্রিয়তার মাপকাঠিটা আর নিশ্চয়ই আলাদা করে বলে দেওয়ার দরকার নেই৷ গাড়ি এসে দাঁড়াল আট নম্বর ভিক্টর অ্যাভিনিউয়ে৷ প্রথম ঝলকেই তাক লেগে গেল! হলুদ রঙের ছবির মতো এই বাড়িতেই বাইশ গজের বাইরের সময়টা কাটান ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান৷ বাড়ি না বলে প্রাসাদ বলাই ভাল৷ কী কী রয়েছে সেই মহলে? ন’টা বড় বেডরুম৷ ব্যক্তিগত সিনেমা হল৷ চারটে গ্যারেজ আর অনেকগুলো সুইমিং পুল৷

এক প্রতিবেশী জানালেন, টাওয়েল জড়িয়ে দোতলার এই বারান্দাতে এসে দাঁড়িয়ে রাজার মতো কিংস্টনের শোভা দেখেন গেইল৷ শুধু তো আইপিএল নয়, বাংলাদেশ, অস্ট্রেলিয়ার ফ্র্যাঞ্চাইজি দলেও খেলেন তিনি৷ আর সেই বিপুল উপার্জনেই এমন রাজকীয় জীবনযাপন৷ এখানেই কিন্তু শেষ হয়৷ কিংস্টনে রয়েছে তাঁর ‘ট্রিপল সেঞ্চুরি’ বারও৷ টেস্টে জোড়া ত্রি-শতরানের কৃতিত্বকে মনে রাখতে দেওয়া হয়েছিল এই নাম৷ তাঁর জীবনযাপনের ধারাকে ‘উচ্ছৃঙ্খল’ আখ্যা দিয়ে অনেকেই সমালোচনা করেন৷ অনেকে বলেন, একজন সেলেব্রিটির প্রকাশ্যে নারীদের সঙ্গে এতটা বাড়াবাড়ি করা উচিত নয়৷ কিন্তু তাতে কী! গেইল আছেন নিজের মেজাজেই৷ নিঃসন্দেহে থাকবেনও৷

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

Related posts