November 18, 2018

পাকিস্তানে ভার্সিটিতে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত ২১

237

পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে বাচা খান বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালিয়েছে বন্দুকধারীরা। এ হামলার ঘটনায় ২১ জন নিহত হয়েছেন বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে। এতে আহত হয়েছেন আরো অর্ধশতাধিক। আটকে পড়াদের উদ্ধারে চলছে সেনাবাহিনীর অভিযান।

বুধবার সকালে পেশোয়ার থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের চারসাদ্দা শহরে অবস্থিত ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে একজন শিক্ষকও রয়েছেন। এছাড়া নিরাপত্তাবাহিনীর অভিযানে দুই বন্দুকধারী নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পাকিস্তান পুলিশ। সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, এই হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেছে পাকিস্তানের তেহরিক-ই-তালেবান গোষ্ঠি।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোর খবরে জানানো হয়, গুলির পাশাপাশি বেশ কয়েকটি বড় ধরনের বিস্ফোরণের শব্দও শোনা গেছে হামলার সময়। পাশাপাশি সেনাবাহিনী অভিযান শুরু করলে আরও মৃতের ঘটনা ঘটতে পারে বলেও পাকিস্তানভিত্তিক গণমাধ্যম দ্য ডন জানিয়েছে।

আটক শিক্ষার্থীদের উদ্ধারে অভিযানে নেমেছে দেশটির সেনাবাহিনী। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অর্ধ শতাধিক শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছেন দাবি করছেন তারা। সেই সঙ্গে তাদের গুলিতে বন্দুকধারীদেরও দুজন মারা গেছে বলে দাবি করা হয়েছে। উদ্ধারকৃতদের মধ্যে আহতদের চিকিৎসার জন্য তাদেরকে জেলা হেডকোয়ার্টার্স হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

অভিযানের সুবিধার্থে সাংবাদিক ও বিষয় সংশ্লিষ্ট নয় এমন ব্যক্তিদের দূরত্ব বজায় রাখতে বলা হয়েছে। ২০টিরও বেশি অ্যাম্বুলেন্স ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আটকা পড়া শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা ক্যাম্পাসের বাইরে এসে ভিড় করছেন।

বলা হচ্ছে, হামলার সময় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ৩ হাজার শিক্ষার্থী উপস্থিতির পাশাপাশি আরও ছয়শজন দর্শনার্থী ছিলেন, যারা সেসময় পশতুন সমাজকর্মী আব্দুল গাফ্ফার ‘বাচা’ খানের মৃত্যুবার্ষিকীতে এসেছিলেন এবং সেসময় ওই নেতার উদ্দেশ্যে কবিতা পাঠ চলছিল।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পেশোয়ারে সেনাবাহিনী পরিচালিত স্কুলে ঢুকে জঙ্গিরা যে কায়দায় ১৩২ শিক্ষার্থীসহ ১৪১ জনকে হত্যা করেছিল, বাচা খানের হামলাও হয়েছে একই কায়দায়।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts