November 13, 2018

পদ্মা সেতু ফজিলাতুন্নেছার নামে করার দাবি!

স্টাফ রিপোর্টারঃ   শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে নির্মাণাধীন পদ্মা বহুমুখী সেতু বঙ্গবন্ধু করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি।

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীতে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংগঠনের জরুরি সভায় এই সংক্রান্ত প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হয়। যুবলীগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

কেন্দ্রীয় যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমানের পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আগামী ৩০ ডিসেম্বর রাজনৈতিক দলের ব্যানারে বাংলাদেশের ইতিহাসের প্রথম পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ২৪১ জন কেন্দ্রীয় নেতা ৩০টি টিমে বিভক্ত হয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীদের নৌকা প্রতীকের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা ও কার্যক্রম সমন্বয় করবেন।

আসন্ন পৌর নির্বাচনে কেন্দ্রীয় যুবলীগের নির্বাচনী প্রচারণা টিমে দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের করণীয় সম্পর্কে দিকনির্দেশনা দিতে মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির এক জরুরি গুরুত্বপূর্ণ সভা সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন এবং উপস্থিত নেতাদের উদ্দেশ্যে দিকনির্দেশনা মূলক বক্তব্য দেন যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী।

ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, দলীয় প্রতীকে স্থানীয় সরকার পরিষদ নির্বাচন বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার জন্য নুতন মাইলফলক। এর ফলে জনগণের নিকট নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের জবাবদিহিতা আরো নিশ্চিত হবে। এই প্রক্রিয়ায় নির্বাচনের মাধ্যমে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার বিশ্ব শান্তির দর্শন ‘জনগণের ক্ষমতায়ন’ বাস্তবায়নের পথে বাংলাদেশ আরো একধাপ এগিয়ে গেলো।

সভায় উপস্থিত কেন্দ্রীয় নেতাদের উদ্দেশে যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেন, রাজনৈতিকভাবে দেশের ইতিহাসে সর্বপ্রথম অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চিত করতে এবং রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার দর্শন, বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে জনগণের ক্ষমতায়ন সু-সংহত করতে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতৃবৃন্দকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। যুবলীগের জেলা ও উপজেলা শাখার সব নেতা ও কর্মীকে নৌকা প্রতীকের পক্ষে নির্বাচনী কাজে শামিল করাই হবে সফররত কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রধান দায়িত্ব ও কর্তব্য।

ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, পৌর নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ যুবলীগের সব পর্যায়ের নেতা ও কর্মীদের জন্য বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কাজেই জেলা পর্যায়ের কোনো নেতা নির্বাচনে দায়িত্ববিহীন থাকবে না অথবা নৌকা প্রতীকের বাইরে অন্য কোনো প্রতীকের পক্ষে কর্মকাণ্ডে শামিল হতে পারবে না। কেন্দ্রীয় টিমের কোনো সদস্য কোনো কাউন্সিলরের পক্ষে নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।

সভায় বক্তব্য দেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশীদ, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শহীদ সেরনিয়াবাত, মজিবুর রহমান চৌধুরী, মো. ফারুক হোসেন, মাহাবুবুর রহমান হিরন, আব্দুস সাত্তার মাসুদ, মো. আতাউর রহমান, সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, অধ্যাপক এ বি এম আমজাদ হোসেন, স্থপতি নিখিল গুহ, অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু, শেখ আতিয়ার রহমান দিপু, জাকির হোসেন খাঁন, যুগ্ম সম্পাদক সুব্রত পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক আতিক, আবু আহম্মেদ নাসিম পাভেল, আসাদুল হক আসাদ, দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মিজানুল ইসলাম মিজু, উপ-সম্পাদক মোহম্মদ ইসলাম, মতিউর রহমান বাদশা, শাহাদাৎ হোসেন তসলিম, রফিকুল ইসলাম চৌধুরী, শ্যামল কুমার রায়, সহসম্পাদক রফিকুল ইসলাম, জাকির হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা রওশন জামির রানা, মনিরুল ইলাম হাওলাদার, এন আই আহম্মেদ সৈকত প্রমুখ।

যুবলীগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, আগামী ১৭ ডিসেম্বর থেকে নির্বাচন সু-সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত কেন্দ্রীয় টিমের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের নির্দিষ্ট নির্বাচনী এলাকায় ধারাবাহিক নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন। প্রতিটি টিম প্রধান নিয়মিত সংগঠনের চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদককে তাদের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে অবহিত করবেন এবং ৫ জানুয়ারির মধ্যে টিমের সামগ্রিক কর্মকাণ্ড ও সদস্যদের অংশগ্রহণ সম্পর্কিত লিখিত রিপোর্ট চেয়ারম্যান বরাবর দাখিল করবেন।

যুবলীগের সভায় বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে পদ্মা সেতুর নামকরণ করার প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হয় বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts